ইসলামাবাদ: একদিকে ভারতে প্রকাশিত হচ্ছে ভোটের ফলাফল। সকাল থেকেই ট্রেন্ড বলছে, ফের ক্ষমতায় আসছেন মোদী। বিপুল আসন পাচ্ছে এনডিএ। অন্যদিকে, এদিনই মিসাইল পরীক্ষা করার কথা ঘোষণা করল পাকিস্তান। এক্সিট পোলের পর ভারতে মোদী ফিরছে শুনে পাকিস্তানে গত কয়েকদিন ধরে আতঙ্ক ছড়িয়েছিল। তাই বিজেপি যখন জয়ের পথে, তখন পাকিস্তান কার্যত ওয়ার্নিং দিতে এই পরীক্ষা করেছে বলে মনে করা হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার পাকিস্তান শাহিন-২ মিসাইল পরীক্ষা করার কথা জানিয়েছে। এটি একটি সারফেস টু সারফেস মিসাইল। এই ব্যালিস্টিক মিসাইল ১৫০০ মাইল দূরে পরমাণু অস্ত্র নিক্ষেপ করতে পারে।

পাকিস্তানের সেনাবাহিনী এই মিসাইল নিয়ে যথেষ্ট শক্তিশালী হল বলেই মনে করছে। আঞ্চলিক শান্তি বজায় রাখতেই এই পরীক্ষা বলে দাবি করছে। যদিও ভারতের নাম উল্লেখ করা হয়নি।

এদিকে, বুধবারই সুষমা স্বরাজের সঙ্গে কথা হয়েছে পাক মন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশির। সাংহাই কো-অপারেশন -এর মিটিং-এ গিয়ে কথা হয় তাঁদের, যা নিয়ে বিরোধীরা কটাক্ষও করেছেন।

এদিকে ফলাফল ঘোষণার আগে থেকেই পাকিস্তানের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে দেখা যাচ্ছে মোদীর ফেরার আতঙ্কে ভুগছে পাকিস্তান।

সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের প্রসঙ্গে তুলে পাকিস্তানের মানুষ চাইছে, যাতে মোদী আর ক্ষমতায় না ফেরে। এতে পাকিস্তানের ক্ষতি হবে বলেই মনে করছে অনেকে।

পাকিস্তানের এক সংবাদমাধ্যমে লাহোরের বাসিন্দা শাহি আলম বলেন, ‘মোদী পাকিস্তানে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালিয়েছেন। ওনার আর ক্ষমতায় ফেরা উচিত নয়।’

আইজাজ নামে আর এক ব্যক্তি মনে করেন, কোনোভাবেই সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভ করবে না বিজেপি। তিনি নিশ্চিত যে বেশি ভোট পাবে না মোদী। আর তাতেই ভাল হবে পাকিস্তানের।