ram mandir -1

নয়াদিল্লি: পাকিস্তানকে একহাত নিল ভারত। বৃহস্পতিবার রামমন্দির নিয়ে করা পাক বক্তব্যের জবাবে ভারত জানিয়ে দিল এই ধরণের মন্তব্য করার আগে, পাকিস্তানের লজ্জা হওয়া উচিত।

বৃহস্পতিবার বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র পাকিস্তানকে কটাক্ষ করে বলেন ভারতের সমালোচনা করার আগে নিজের দেশকে শুধরে নিক ইসলামাবাদ। তাঁদের নিজেদের দেশের সংবিধানটা ভালো করে পড়ে নেওয়া উচিত পাকিস্তানের। এই ধরণের মন্তব্য কুরুচিকর ও অবাস্তব। সংখ্যালঘুদের ব্যাপারে কথা বলার আগে পাকিস্তানের নিজেদের দেশের অবস্থাটা ভালো করে দেখা উচিত। ভারতের সংখ্যালঘুদের প্রতি এই দেশ যথেষ্ট যত্নশীল।

এর আগে, রামমন্দির গঠন প্রসঙ্গে ভারতকে কটাক্ষ করে পাকিস্তান। জানায় করোনা ভাইরাস মহামারীর মধ্যেও রাম মন্দির গঠন করতে ভুলছে না মোদী সরকার। হিন্দুত্ববাদকে সামনে রেখে রাম মন্দির গঠনের কাজ চলছে। এই ভাষাতেই বুধবার ভারতের সমালোচনা করেছিল পাকিস্তান। সেই সঙ্গে তাঁদের বক্তব্যে উঠে এসেছিল আরএসএস-বিজেপি জোটের কথাও। বাবরি মসজিদের জায়গায় রামমন্দির গঠনের কাজ শুরু করেছে মোদী সরকার, এই কাজ হিন্দুত্ববাদ প্রতিষ্ঠার পথে আরও এক ধাপ বলে সমালোচনা করে ইসলামাবাদ।

তারই প্রেক্ষিতে এদিন কড়া জবাব দেয় নয়াদিল্লি। ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রক জবাব দেয় পাক বিদেশ মন্ত্রকের সময় করে নিজেদের সংবিধান পড়া উচিত। তবেই দুই দেশের সংবিধানের পার্থক্য বুঝতে পারবেন তাঁরা।

উল্লেখ্য, ২৬শে মে রাম মন্দির গঠনের কাজ শুরু করা হয়েছে। ২৭ বছর পর ২৫শে মার্চ রামের মূর্তি অস্থায়ী মন্দির থেকে সরিয়ে একটি পালকি করে নিয়ে যাওয়া হয় মানস ভবনে। এই সময়ে উপস্থিত ছিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। অস্থায়ী মন্দিরটি বুলেটপ্রুফ ও ফাইবার দিয়ে তৈরি।

প্রায় শতাব্দীপ্রাচীন বিতর্ক মিটিয়ে ২০১৯ সালের ৯ই নভেম্বর সুপ্রিম কোর্ট জানায় অযোধ্যার বিতর্কিত জমি পাচ্ছেন হিন্দুরাই, তৈরি হবে রাম মন্দির। বিতর্কিত জমি বাদে অযোধ্যায় ৫ একর জমি দেওয়া হবে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে। সেখানে তৈরি হতে পারে মসজিদ। এছাড়াও শীর্ষ আদালত জানিয়ে ছিল ৩-৪ মাসের মধ্যে কেন্দ্রীয় সরকারকে বিশেষ স্কিম তৈরি করতে হবে। যাতে বিতর্কিত জমি মন্দির পক্ষের হাতে তুলে দেওয়া হয় ও অন্য পাঁচ একর জমি সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে দেওয়া হয়।

আচার্য সত্যেন্দ্র দাস আশাপ্রকাশ করেন রাম মন্দির গঠনে টাকার কোনও অভাব হবে না। ইতিমধ্যেই রামমন্দির নির্মাণের জন্য মোটা অঙ্কের অনুদান জমা পড়েছে। এর আগে, এপ্রিল মাসে করোনা ভাইরাসের হামলার জেরে পিছিয়ে যায় অযোধ্যার রাম মন্দির নির্মাণের ভূমি পুজো। পরিস্থিতির কথা বিচার করে ভূমি পুজোর অনুষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয় রাম জন্মভূমি ট্রাস্ট।

প্রশ্ন অনেক: দ্বিতীয় পর্ব