ইসলামাবাদঃ  লাগাতার ভারী বৃষ্টি। পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশে গত কয়েকদিন ধরে লাগাতার ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাত হয়। টানা বৃষ্টিতে ইতিমধ্যে প্রদেশের বহু জায়গাতে জল জমে গিয়েছে। ধস নেমেছে। বিভিন্ন ঘটনায় অন্তত ২৭ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। আরও ৪৬ জন আহত হয়েছে বলে সে দেশের সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে জানা গিয়েছে।

শনিবার সকালে শুরু হওয়ার পর থেকে টানা চার দিন ধরে কখনও ভারি তো কখনও অতি ভারী বৃষ্টিপাত হয়েছে। লাগাতার এভাবে বৃষ্টিপাতে কয়েকটি এলাকায় ব্যাপক প্রাকৃতিক বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। বেশ কিছু এলাকা একেবারে বিদ্যুৎবিহীন অবস্থায় রয়েছে বলে জানাচ্ছেন সে দেশের অন্যতম বড় সংবাদমাধ্যম ডন নিউজ।

করাচি সুরজানি টাউন এলাকায় সর্বোচ্চ ২০০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। পাশাপাশি ১২টি আবহাওয়া স্টেশনে ১৫৮ মিলিমিটারেরও বেশি বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

অন্যদিকে আগামী বৃহস্পতিবার থেকে সিন্ধুতে ফের মাঝারি থেকে ভারি বৃষ্টিপাতের আরেকটি পর্ব শুরু হতে পারে বলে সতর্ক করেছে পাকিস্তানের আবহাওয়া দফতর। পুলিশের তরফে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী সে দেশে প্রকাশিত সংবাদমাধ্যম জানাচ্ছে, পুরো প্রদেশ-জুড়ে লাগাতার বৃষ্টির কারণে নানা ঘটনায় মোট ২৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে কারাচির বাসিন্দা ২৪ জন।

নিহতদের অধিকাংশই বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ও বাড়ির ছাদ ধসে মারা গিয়েছেন। আরেক ঘটনায় মালির নদীতে একটি ট্রাক পড়ে যাওয়ার পর চালক ডুবে মারা গিয়েছেন বলে জানা যাচ্ছে।

কেয়ামারি ও বিন কাসিম এলাকায় ভবনের দেওয়াল ধসে দুজনের মৃত্যু হয়েছে। আলিগড় সোসাইটি এলাকায় একটি মসজিদের ছাদ ধসে আরেক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে ও আরও ১৫ জন আহত হয়েছেন। আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট আরেকটি নিম্নচাপের কারণে ভারতের পূর্বাঞ্চলে ব্যাপক বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা আছে এবং তা বৃহস্পতিবারের মধ্যে পশ্চিমদিকে অগ্রসর হয়ে ভারতের রাজস্থান ও পাকিস্তানের সিন্ধুতেও ব্যাপক বৃষ্টিপাতের কারণ হতে পারে।