বিশকেক: কথা বলার আগে সন্ত্রাসে মদত দেওয়া বন্ধ করুক পাকিস্তান। চিনের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে দেখা করে এমন বার্তাই দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

নয়াদিল্লি বরাবরই বলে এসেছে যে সন্ত্রাস আর আলোচনা একইসঙ্গে চলতে পারে না। সেই অবস্থানেই অনড় থাকলেন মোদী। বিশকেকে এসসিও সম্মেলনে গিয়ে জিংপিং-কে তাই পাকিস্তানের সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে বার্তা দিয়েছেন মোদী।

বিদেশ মন্ত্রক সূত্রে জানা গিয়েছে, সাংহাই কো অপারেশন অর্গানাইজেশনের শীর্ষ বৈঠকের ফাঁকে দেখা হয় দুই প্রতিবেশী দেশের রাষ্ট্রনেতার। বিদেশ সচিব জানিয়েছেন, মোদী চিনের প্রেসিডেন্টকে বলেন, ‘‘সন্ত্রাসমুক্ত এক পরিমণ্ডল তৈরি করা প্রয়োজন পাকিস্তানের। কিন্তু এই মুহূর্তে তেমন কিছু ঘটতে দেখছি ন‌া। আমরা আশাবাদী ইসলামাবাদ কড়া ব্যবস্থা নেবে।”

চিন পাকিস্তানের কৌশলী সঙ্গী। তারা সেদেশের পরিকাঠামোগত প্রজেক্টে বিনিয়োগ করে। জিনপিং পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গেও দেখা করতে পারেন। ইমরানও ওই শীর্ষ বৈঠকে যোগ দিতে সেদেশে গিয়েছেন।

এই বৈঠকের আগেই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ও বিদেশ মন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি ভারতের সঙ্গে কথোপকথনের জন্য অনুরোধ জানিয়ে চিঠি লেখেন। ইমরান খান মোদীকে লেখেন, তিনি সব ব্যাপারে কথা বল‌তে ইচ্ছুক। এমনকী কাশ্মীর নিয়েও।

কিন্তু এই শীর্ষ বৈঠকে ইমরান খানের সঙ্গে নরেন্দ্র মোদীর কোনও দ্বিপাক্ষিক সাক্ষাতের সম্ভাবনা নেই। ফলে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরে এই প্রথম ইমরান মুখোমুখি হতেন মোদীর।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি জম্মু ও কাশ্মীরের পুলওয়ামায় জঙ্গি হানায় ৪০ জন সেনার মৃত্যু হলে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার ব্যাপারে চাপ বাড়িয়েছে ভারত।

মাসুদ আজহারকে জঙ্গি ঘোষণায় রাষ্ট্রসংঘে চিন বাধা না দেওয়ায় ভারত নৈতিক জয় পেয়েছে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে। আমেরিকা, ব্রিটেন ও ফ্রান্সের পরে বেজিংও এ ব্যাপারে আর কোনও বাধা না দেওয়ার কথা জানিয়েছে।

অন্যদিকে, মোদীর আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে জিংপিং জানিয়ে দিয়েছেন, এই বছরের শেষ দিকেই ভারতে আসবেন তিনি।
গত বছর ওয়াহানে দেখা হয়েছিল দুজনের। ওই বৈঠক সফল হয়েছিল। তখনই মোদী তাঁকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন ভারতে আসার জন্য। সম্প্রতি জিংপিং জানিয়েছেন এই বছরের শেষ দিকেই ভারতে আসবেন তিনি।

তিনি ভারতে আসবেন একটি শীর্ষ বৈঠকে যোগ দিতে। বিদেশ মন্ত্রকের পক্ষ থেকে একথা বৃহস্পতিবার জানানো হয়েছে। Shanghai Cooperation Organisation বা SCO শীর্ষ বৈঠকে এদিন প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে চিনের রাষ্ট্রপতির বৈঠকের পর জি জিনপিং একথা জানিয়েছেন।