করাচি: এক দশক পর সদ্য পাকিস্তানের মাটিতে শ্রীলঙ্কা টেস্ট সিরিজ খেললেও সেদেশে টেস্ট খেলতে রাজি হয়নি বাংলাদেশ৷ কোনও নিরপেক্ষ ভেন্যুতে তার টেস্ট খেলতে চায় বলে বিসিবি-র তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়৷ এর পিছনে ভারতের হাত রয়েছে বলে অভিযোগ করেন পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রী মেহমুদ কুরেশি৷

আগামাী বছর জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে পাকিস্তানের মাটিতে দু’টি টেস্ট এবং তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজ খেলতে যাওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশের৷ কিন্তু নিরাপত্তার কারণে বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা পাকিস্তানের মাটিতে টেস্ট খেলতে রাজি হয়নি৷ শুধু তাই তাদের পাকিস্তান সফর এখনও নিশ্চিত নয় বলে জানিয়েছেন বিসিবি প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান৷ কারণ শুধু টেস্ট সিরিজই নয়, দলের অনেক ক্রিকেটার টি-২০ সিরিজ খেলতে যেতেও রাজি হচ্ছে না৷

এর পরই পাক মন্ত্রী সোমবার দাবি করেন, বাংলাদেশের সিরিজ না-করার পিছনে রয়েছে ভারতের হাত৷ কুরেশি জানান, ‘শ্রীলঙ্কা এখানে এসে টেস্ট সিরিজ খেলে গিয়েছে৷ এজন্য আমরা ওদের ধন্যবাদ জানায়৷ শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটাররা বলে গিয়েছে, পাকিস্তানে ক্রিকেট খেলার আদর্শ পরিবেশ রয়েছে৷ নিরাপত্তার কোনও খামতি নেই৷ তাদের কোনও সমস্যা হয়নি৷’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশকেও স্বাগত জানাচ্ছি৷ আশা করব সফরটা হবে৷ আমার মনে হচ্ছে বাংলাদেশের উপর ভারত চাপ দিচ্ছে৷ কিন্তু বাংলাদেশের উচিত নিজেরা সিদ্ধান্ত নেওয়া৷ ওর ভারতের সঙ্গে খেলছে, কিন্তু আন্তর্জাতিক স্পোর্টসে এই ধরনের রাজনীতি মোটেই উচিত নয়৷’

২০০৯ লাহোরে শ্রীলঙ্কার টিম বাসে জঙ্গি হানার পর থেকে পাকিস্তানের আন্তর্জাতিক ম্যাচ বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় আইসিসি৷ কিন্তু ধীরে ধীরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় বছর কয়েক আগে জিম্বাবোয়ে ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ পাকিস্তানের মাটিতে সীমিত ওভারের ম্যাচ খেল৷ কিন্তু এক দশক পর সম্প্রতি পাকিস্তানের মাটিতে টেস্ট খেলে শ্রীলঙ্কা৷ করাচি ও রাওয়াপিন্ডিতে দুই টেস্ট সিরিজ খেলেন লঙ্কান ক্রিকেটাররা৷