ইসলামাবাদ:  পাকিস্তানের  লাল শাহবাজ কলন্দর সৌধে হামলার ঘটনায় নড়েচড়ে বসল ইসলামাবাদ প্রশাসন।  হামলার ২৪ ঘন্টার মধ্যে ১০০ জন জঙ্গিকে খতম করল পাক নিরাপত্তা-বাহিনী।  শুধু তাই নয়, দেশজুড়ে শুরু হয়েছে ব্যাপক তল্লাশি।  শুরু হয়েছে জঙ্গি নিকেশও।  জানা গিয়েছে, ঘটনার পরেই প্রশাসনের তরফে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, যে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহ হলেও খতম কর!

পড়ুন আরও –  পাক-সৌধে বিস্ফোরণের দায় স্বীকার আইএসের

পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশের সেওয়ানে বিখ্যাত লাল শাহবাজ কলান্দর সুফি দরগায় আইএস জঙ্গির আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটায়।  এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত অন্ততপক্ষে ১০০ জনের মৃত্যু হয়েছে।  হামলার পরই দক্ষিণ সিন্ধুপ্রদেশে রাতে শুরু হওয়া সন্ত্রাসদমন অভিযানে ১৮ জঙ্গিকে মেরেছে আধাসামরিক সিন্ধ রেঞ্জার্স।  বাহিনীর তরফে বলা হয়েছে, সিন্ধুপ্রদেশের কাঠোরের কাছে সুপার হাইওয়ের ওপর আধাসামরিক বাহিনীর একটি কনভয়ের ওপর অতর্কিত হামলা চালায় জঙ্গিরা।  পাল্টা জবাবে ৭ জঙ্গি খতম হয়।  ওই জওয়ানরা সেওয়ানে উদ্ধারকার্য সেরে ফিরছিলেন।  সেই সময় হামলা হয়।

এদিকে, করাচির মঙ্ঘোপির এলাকায় পৃথক অভিযানে আরও ১১ জন জঙ্গি খতম করে পাক রেঞ্চার্স বাহিনী।  আবার, দেশের উত্তর-পশ্চিমে খাইবার-পাখতুনখোয়া প্রদেশেও আরও ১১ জন জঙ্গিকে খতম করে নিরাপত্তা-বাহিনী। পাকিস্তানের এক আধিকারিক জানান, পেশোয়ারের রেগ্গি অঞ্চলে পুলিশ তিন জঙ্গিকে খতম করেছে। এছাড়া, উপজাতি-অধ্যুষিত ওরাকজাই অঞ্চলে সেনা চার জঙ্গিকে খতম করেছে।  অন্যদিকে, বান্নু এলাকায় চার জঙ্গিকে খতম করা হয়েছে।