নয়াদিল্লি : গুরু নানকের ৫৫০ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ৩৮০০ শিখ দর্শনার্থীকে ভিসা দিল নয়াদিল্লির পাকিস্তান হাই কমিশন৷ ২১-৩০ নভেম্বরের মধ্যে তাদের পাকিস্তানে গুরু নানকের জন্ম বার্ষিকীর উৎসবে যোগ দেওয়ার কথা রয়েছে৷

পাকিস্তান হাই কমিশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে এই উপলক্ষ্যে প্রতিবছরই হাজার হাজার শিখ দর্শনার্থী পাকিস্তান যান৷ তাদের জন্য ভিসা দেওয়া হয় হাই কমিশনের পক্ষ থেকে৷ এবারও পাকিস্তানের দরজা ভারতের পুণ্যার্থীদের জন্য খুলে দেওয়া হল৷ ১৯৭৪ সাল থেকে এই পবিত্র উপাসনাস্থলে ভিড় করেন ভারতীয় ভক্তরা৷ এবছর ৩৮০০ ভক্তের জন্য ভিসা দিয়েছে পাকিস্তান হাই কমিশন৷

পরিসংখ্যান বলছে গত কয়েক বছরের তুলনায় এবছর ভক্তের সংখ্যা অনেকটাই বেড়েছে৷ অন্যান্য বার প্রায় ৩০০০-এর কাছাকাছি এই সংখ্যা থাকলেও, এবছর তা ৩৮০০ ছাড়িয়েছে৷ যদিও পাকিস্তানের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ ৩০০০ ভিসা দেওয়ার কথা থাকলেও গুরু নানকের ৫৫০ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে সৌজন্যের হাত বাড়িয়েছে পাকিস্তান, এমনই জানিয়েছেন পাকিস্তানের হাইকমিশনার সোহেল মাহমুদ৷

এই গুরুদ্বার পাকিস্তানের পঞ্জাব প্রদেশের নরওয়াল জেলায় অবস্থিত। এর আগে পাকিস্তানের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল ভারত-পাক সীমান্তের একটি বিশেষ অংশ খুলে দেওয়া হবে শিখ পুণ্যার্থীদের জন্য গুরু নানকের ৫৫০তম জন্মোৎসব উপলক্ষে৷ পাঞ্জাবের গুরুদাসপুর থেকে পাক-পাঞ্জাবের নরওয়াল পর্যন্ত একটি মুক্ত পথের জন্য ভারত অনেক বার পাক সরকারকে আবেদন করেছে। এই দুই স্থানের দূরত্ব মাত্র ৬ কিলোমিটার।

অগস্টে নতুন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পঞ্জাবের মন্ত্রী নভজ্যোৎ সিংহ সিধু। গুরু নানকের ৫৫০তম জন্মোৎসবের কালে এই কর্তারপুর সীমান্ত উন্মোচনের কথা তিনি পাক সেনা প্রধানকে জানান৷ এই নিয়ে বিস্তর জলঘোলা হয়৷