ইসলামাবাদ: আর্থিক অবস্থা খুই খারাপ পাকিস্তানের। এর মধ্যেই তেলের দাম একধাক্কায় অনেকটা বাড়িয়ে দিল ইমরান খান সরকার। তেলের দাম প্রায় ৫ টাকা প্রতি লিটার বাড়ানো হয়েছে।

পেট্রোলে লিটার প্রতি দাম বেড়েছে ৫.১৫ টাকা। বর্ধিত দাম হয়েছে ১১৭.৮৩ টাকা। হাই স্পিড ডিজেলের দাম বেড়েছে ৫.৬৫ টাকা। কেরোসিনের দাম বেড়েছে ৫.৩৮ টাকা ও লাইট ডিজেলের দাম বেড়েছে ৮.৯ টাকা।

এর আগে বিপাকে পড়ে রুটির দামও বাড়িয়ে দিয়েছিল পাকিস্তান। কিন্তু সাধারণ মানুষের চাপে আবার সেই কমাতে বাধ্য হল ইমরান খান সরকার।

নান ও রুটির দাম আগের অবস্থায় ফিরিয়ে নিয়েছে পাকিস্তান। বর্তমানে সেখানকার বিভিন্ন শহরে নান বিক্রি হয় ১২ টাকা থেকে ১৫ টাকায়। গ্যাসের শুল্ক ও আটার দাম বৃদ্ধির আগে এই দাম ছিল ৮ টাকা থেকে ১০ টাকা। একইভাবে বর্তমানে রুটির দাম ১০ থেকে থেকে ১২ টাকা। আগে এর দাম ছিল ৭ থেকে ৮ টাকা।

মঙ্গলবার এই বিষয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীপরিষদের বৈঠক হয় পাকিস্তানে। সেখানে সিদ্ধান্ত হয়, সারাদেশে আগের দামে বিক্রি করতে হবে নান ও রুটি। বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য বিষয়ক বিশেষ সহকারী ড. ফিরদৌস আশিক আওয়ান সাংবাদিক সম্মেলনে রুটির দাম ফের কমিয়ে আনার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেন।

ড. ফিরদৌস আশিক আওয়ান বলেন, মন্ত্রীপরিষদের বৈঠকে বিভিন্ন ইস্যু ছাড়াও গ্যাসের শুল্ক বৃদ্ধি, নান ও রুটির মূল্য বৃদ্ধি নিয়ে কথা হয়েছে। এই বৈঠকে ছিলেম খোদ প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এর প্রেক্ষিতে মন্ত্রীপরিষদের অর্থনৈতিক সমন্বয় কমিটির বৈঠক আহ্বান করেছেন বুধবার।

‘ইন্টারব্যঅশনাল মনিটারি ফান্ড’-এর হিসেব বলছে, পাকিস্তানের আর্থিক বৃদ্ধি এবছর হয়েছে মাত্র ২.৯ শতাংশ, যা গত বছরেও ছিল ৫.২ শতাংশ। অর্থাৎ প্রায় অর্ধেক হয়ে গিয়েছে সেই সংখ্যা। স্টেট ব্যাংক অফ পাকিস্তানে ফরেন রিজার্ভ হিসেবে পড়ে আছে মাত্র ৮ বিলিয় ডলার।