ইসলামাবাদ: মানচিত্র নিয়ে সাম্প্রতিককালে বিতর্ক হয়েছে নেপালের সঙ্গে। ভারতের একাধিক জায়গা স্থান পেয়েছে তাদের নয়া মানচিত্রে। এবার ভারতের একাধিক অংশ মানচিত্রে যুক্ত করল পাকিস্তান।

মঙ্গলবারই সেই বিতর্কিত মানচিত্র প্রকাশ করেছে পাকিস্তানের সরকার। বুধবারই কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা তুলে নেওয়ার এক বছর পূর্ণ হচ্ছে। আর তার ঠিক আগেই এই মানচিত্র প্রকাশ করল পাকিস্তান।

এদিন মানচিত্র প্রকাশ করে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেন, ‘পাকিস্তানের মানুষের লক্ষ্য প্রকাশিত হয়েছে এই মানচিত্রে। আজ একটা ঐতিহাসিক দিন, কারণ আমরা একটি নতুন রাজনৈতিক মানচিত্র প্রকাশ করেছি, যা গোটা দেশ ও কাশ্মীরের মানুষের ইচ্ছেতেই তৈরি হয়েছে।’

এতদিন পর্যন্ত পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরের অংশকে আনুষ্ঠানিকভাবে নিজেদের অংশ বলে দাবি করত না। গিলগিট-বালতিস্তানকে নিজেদের বলে উল্লেখ করলেও বাকি অংশকে পাকিস্তান ‘আজাদ কাশ্মীর’ বলে উল্লেখ করত।

এদিন পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি বলেন, এই প্রথমবার পাকিস্তান গোটা বিশ্বের সামনে নিজেদের অবস্থাব স্পষ্ট করল। তিনি দাবি করেন, কাশ্মীরের বিতর্কিত ংশের সমস্যা যেন মেটানো সম্ভব হয় রাষ্ট্রসংঘের সাহায্যে।

পাকিস্তান আরও জানিয়েছে যে বুধবার, ৫ অগস্ট দিনটিকে ‘কালা দিবস’ হিসেবে পালন করা হবে পাকিস্তানে।

এদিকে আগেই নেপালের মানচিত্রে যুক্ত করা হয়েছে ভারতের তিনটি অংশ। আর সেই মানচিত্র নিয়েই বিতর্ক। বিতর্কের মাঝেই নেপালের অ্যাসেম্বলিতে সংবিধান সংশোধনীর পর নতুন সরকারি ম্যাপ তৈরি হয়ে যায়।

নেপালের অ্যাসেম্বলিতে ৫৭ শতাংশ ভোট পড়ে নতুন মানচিত্রের সমর্থনে। কালাপানি, লিমপিয়াধুরা, লিপুলেখ এই তিনটি অংশকে নিজেদের বলে দাবি করে নয়া মানচিত্র প্রকাশ করেছে নেপাল সরকার।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা