পাকিস্তানের ডিজি আইএসপিআর মেজর জেনারেল আসিফ গফুর

ইসলামাবাদ: ভারতীয় বায়ু সেনার পাকিস্তানে বালাকোট এয়ার স্ট্রাইকের পরদিন ভারতের নৌসেরা সেক্টরে হামলার চেষ্টা করে পাক এয়ার ফোর্স৷ এই হামলায় তারা আমেরিকার তৈরি এফ-১৬ যুদ্ধবিমান ব্যবহার করেছিল৷

২৭ ফেব্রুয়ারির ওই হামলাতে একটি এফ-১৬ ব্যবহারের কথা এতদিন অস্বীকার করে আসছিল পাকিস্তান৷ নিউজ-এইটটিন নামের সংবাদ পত্রের প্রকাশিত খবর অনুসারে, পাক আর্মির মুখপাত্র মেজর জেনারেল আসিফ ঘফুর বক্তব্য, ‘‘ ভারত যা কিছু ভাবতে পারে৷ শুধু এফ-১৬ কেন, আত্মরক্ষার্থে সবরকমের অস্ত্র ব্যবহার করতে পারে পাকিস্তান৷

২৬ ফেব্রুয়ারী পুলওয়ামা সন্ত্রাসবাদী হামলার উত্তর দিতে বালাকোটে এয়ার স্ট্রাইক করে জইশ-ই মহম্মদের বেশ কয়েকটি জঙ্গিঘাটিঁ গুঁড়িয়ে দেয় ভারতীয় বায়ুসেনা৷ এরপরদিনই ভারতের নৌসেরা সেক্টরে হামলার চেষ্টা করে পাকিস্তানী বায়ু সেনা৷

আরও পড়ুন- লোকসভায় বিরোধী প্রার্থী প্রত্যাহার করাতে না পারায় আক্ষেপ তৃণমূল নেতার

পাকিস্তানের বায়ুসেনার তিনটি এফ১৬ বিমান ভারতের নৌসেরা সেক্টরে ঢোকে বোমা ফেলার চেষ্টা করে৷ ভারতের দু’টি মিগ-২১ যুদ্ধবিমান পাকিস্তানী এফ১৬-কে তাড়া করে৷ একটি এফ১৬ বিমানকে ধ্বংস করে দিলেও পরে একটি মিগ২১ ভেঙে পড়ে পাকিস্তানের সাত কিলোমিটার ভেতরে৷ পাকিস্তানের হাতে বন্দি হন ভারতের

কোনও দেশকে আক্রমণের ক্ষেত্রে ব্যবহার করতে পারবে না এফ-১৬৷ এই শর্তেই আমেরিকার থেকে এফ-১৬ বিমান কিনেছিল পাকিস্তান৷ স্বাভাবিকভাবেই এফ-১৬ নিয়ে কীভাবে ভারতে ঢুকে হামলা চালাতে পারে পাকিস্তান সেই অভিযোগ করে আমেরিকাকে তথ্য দেওয়া হয় ভারতের পক্ষ থেকে৷ এতদিন পর্যন্ত, ভারতে হামলার চেষ্ঠায় এফ-১৬ ব্যবহার করার কথা অস্বীকার করে আসছিল পাকিস্তান৷

নিউজ-এইটটিন এর প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুসারে, পাক মেজর জেনারেল আরও বলেন, ‘‘ ২৭ ফেব্রুয়ারির ঘটনা ইতিহাস তৈরি করেছে৷ পাকিস্তান এফ-১৬ ব্যবহার করেছে কিনা সেটা বড় কথা নয়৷ পাকিস্তান এয়ার ফোর্স ভারতের দুটো বিমানকে গুলি করে নামিয়েছে এটাই বড় কথা৷ আমাদের কোনও এফ-১৬ ধ্বংস হয়নি৷’’