জেনেভা: পাকিস্তানের মাটিতে খোঁজ মিলছে না জঙ্গিদের, রাষ্ট্রসংঘে এমনই জানাল ইমরান খানের সরকার। করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তেই দেশের মানচিত্র থেকে মোস্ট ওয়ান্টেড জঙ্গিদের নাম মুছে ফেলার ছক নিয়েছে ইমরান খানের প্রশাসন। বিষয়টি নিয়ে আগেই সতর্ক করে দিয়েছিলেন ভারতীয় গোয়েন্দারা। সেই আশঙ্কাই হল সত্যি। এবার রাষ্ট্রসংঘেও সেই তথ্য জানিয়েছে পাকিস্তান।

পাকিস্তানে বসবাসকারী ১৩০ জঙ্গির তালিকা ইমরান সরকারের হাতে তুলে দেয় রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ। ওই জঙ্গিদের খুঁজে বের করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয় পাক সরকারকে। এবার পাক সরকার জানিয়েছে, ১৩০ জঙ্গির মধ্যে শুধু ১৯ জঙ্গিকেই খুঁজে পাওয়া গিয়েছে। বাকি জঙ্গিদের পাক মাটিতে হদিশই মিলছে না। সম্প্রতি রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদকে এমনই তথ্য জানিয়েছে ইমরান খানের সরকার।

জানা গিয়েছে, রাষ্ট্রসংঘে পাকিস্তান জানিয়েছে, নিরাপত্তা পরিষদের দেওয়া জঙ্গিদের নাম আর জন্ম তারিখ কিছুই ঠিক নেই। সেই কারণেই পাক মাটিতে তাদের খুঁজে বের করা কঠিন হয়ে পড়েছে। এদিকে, বহির্বিশ্বের উপর্যুপরি চাপ ও রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের চাপে আপাতত যে ১৯ জঙ্গির তালিকা পাকিস্তান পাঠিয়েছে তার মধ্যে রয়েছে ভারতে ২৬/১১-এর মুম্বই হামলার মূল চক্রী হাফিজ সইদ।

পাকিস্তানের মাটিতেই বছরের পর বছর ধরে বহাল তবিয়তে দিন কাটাচ্ছে বহু জঙ্গি নেতা। প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে তারা। এমনকী তাদের অনেকেরই সঙ্গে পাক প্রশাসনের কর্তাদের রীতিমতো যোগাযোগ রয়েছে। পাক সরকারের মদতেই জঙ্গি কার্যকলাপ চালিয়ে যাচ্ছে তারা। এবার করোনাভাইরাসের হানার সুযোগ নিয়ে পাক মাটিতে থাকা সেই জঙ্গিদেরই অস্তিত্ত্ব অস্বীকারের ছক নিয়েছে পাকিস্তান।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।