ইসলামাবাদঃ  গোটা দেশজুড়ে নির্বাচন চলছে। ভোট চলছে কাশ্মীরেও। গোটা দেশবাসী যখন বিশ্বের সবথেকে বড় গণতন্ত্রের উৎসবে মেতে, তখন বিস্ফোরক দাবি পাকিস্তানের।

কাশ্মীরে গণভোটের দাবি জানালেন পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি। পাকিস্তান সংসদের কাশ্মীর বিষয়ক কমিটিতে তিনি বলেন, কাশ্মীরী জনগণের মতামতের ভিত্তিতে ওই অঞ্চলের ভবিষ্যৎ নির্ধারণ করতে হবে। আর সে জন্যে কাশ্মীরের মানুষকে গণভোটে অংশ নেওয়ারও কথা বলেন তিনি। আর তার এই মন্তব্য ঘিরেই তীব্র জল্পনা তৈরি হয়েছে।

পাক বিদেশমন্ত্রীর আরও দাবি, ভারতীয় দখলদারিত্ব ও বর্বরতার বিরুদ্ধে কাশ্মীরীদের যে স্বাধীনতা আন্দোলন চলছে তার প্রতি ইসলামাবাদের সমর্থন অব্যাহত থাকবে। শুধু তাই নয়, বিশ্বের সব ফোরামেই কাশ্মীর ইস্যুকে জোরালোভাবে তুলে ধরা হবে বলেও হুমকি পাকিস্তানের। যদিও এর আগে একাধিকবার রাষ্ট্রসংঘে কাশ্মীর ইস্যুকে সামনে নিয়ে এসেছে পাকিস্তান। কিন্তু কোনও লাভই হয়নি।

পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি আরও বলেন, কাশ্মীরে প্রকাশ্যে মানবাধিকার লঙ্ঘন অব্যাহত রেখেছে নয়াদিল্লি। তাঁর অভিযোগ, ভারত নাকি শান্তিপূর্ণ উপায়ে কাশ্মীর সমস্যা সমাধানে রাজি নয়। তিনি আরও বলেন, বিশ্বের সর্ববৃহৎ গণতন্ত্রের দাবিদার ভারত ব্যাপকভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে। ভারতের এই ঘৃণ্য চেহারা তুলে ধরতে হবে বলে তিনি মন্তব্য করেন। যদিও পাকিস্তানের এহেন মন্তব্যকে গুরুত্ব দিতে নারাজ ভার‍ত।