নয়াদিল্লি: বালাকোট এয়ার স্ট্রাইকের পর পাল্টা হামলা করতে যুদ্ধবিমান নিয়ে ভারতের দিকে ছুটে এসেছিল পাকিস্তানের এয়ার ফোর্স। ২৭ ফেব্রুয়ারি ভারতের সীমান্তে কার্যত কয়েক মিনিটের আকাশ যুদ্ধ হয়ে যয় সেদিন।

আগেই জানা গিয়েছিল, ওই দিন ভারতের সেনাঘাঁটি টার্গেট করে বোমা ফেলতে এসেছিল পাক বিমানবাহিনী। এবার জানা গেল, পাকিস্তানের মিরজ ফাইতার জেট থেকে অন্তত ১১টি মিসাইল ছোঁড়া হয়েছিল ওইদিন। লাইন অফ কন্ট্রোল ঘেঁষে ভারতীয় সেনাঘাঁটি লক্ষ্য করে সেগুলি ছোঁড়া হলেও, কোনও লক্ষ্যেই আঘাত করা সম্ভব হয়নি।

আরও পড়ুন: ‘মোদীর নেতৃত্বে ভারত super science power হিসাবেও ক্রমশ এগিয়ে যাচ্ছে’

India Today-তে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, পাকিস্তানের ছোঁড়া বোমাগুলির মধ্যে ছিল H4 SOW বোমাও। এই বোমা ১০০ কিলোমিটার দুর থেকে টার্গেত ধ্বংস করতে পারে।

ওই দিন পাকিস্তান ব্যবহার করেছিল মিরজ-৩, F-16, J-17 বিমানগুলি। তবে ভারতের কোনও ক্ষতি করতে পারেনি পাক যুদ্ধবিমান।

আরও পড়ুন: ভারতের নয়া সাফল্য: কী এই অ্যান্টি স্যাটেলাইট মিসাইল

পরে পাকিস্তানের ছোঁড়া AMRAAM মিসাইল ও বোমার ধ্বংসাবশেষ সংগ্রহ করে ভারতীয় সেনা। পাক মিসাইলের ধ্বংসাবশেষ প্রমাণ হিসেবেও দেখিয়েছিল এয়ার ফোর্স। ওই মিসাইল শুধু F-16 বিমানেই ব্যবহার করা হয়, তাই ভারত প্রমাণ করে দিয়েছিল যে আমেরিকার নিষেধাজ্ঞা সত্বেও পাকিস্তান ওই বিমান ব্যবহার করেছে।

ভারত প্রমাণ দেওয়ার পর আমেরিকা জানিয়েছে, পাকিস্তান ভারতের বিরুদ্ধে আমেরিকার থেকে কেনা এফ-১৬ যুদ্ধবিমানের অপব্যবহার করেছে কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। মার্কিন বিদেশ দফতরের সহকারি মুখপাত্র রবার্ট পাল্লাডিনো বলেন, ‘আমরা রিপোর্টগুলি দেখেছি। গোটা বিষয়টিকে অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এখনই এই বিষয়ে চূড়ান্তভাবে কিছু বলা সম্ভব নয়। মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগের প্রযুক্তি জড়িয়ে রয়েছে, এমন দ্বিপাক্ষিক বিষয় নিয়ে আমরা নীতিগতভাবেই প্রকাশ্যে কোনও মন্তব্য করব না। তবে গোটা বিষয়টির উপর নজর রাখা হচ্ছে।’