ইসলামাবাদ: সারাদিন ধরে অপেক্ষার পর শুক্রবার রাত ৯টা ২০ মিনিটে ওয়াঘা সীমান্ত পার করে ভারতের মাটিতে পা রাখেন অভিনন্দন ভার্তামান। দেশের বীর পাইলটকে স্বাগত জানায় গোটা দেশ। কিন্তু তার ঠিক কিছুক্ষণ আগেই একটি ভিডিও প্রকাশিত হয় পাক মিডিয়ায়। সেখানে তাঁকে বলিয়ে নেওয়া হচ্ছে, ভারতীয় মিডিয়া সবকিছু ফুলিয়ে ফাঁপিয়ে দেখায়৷

ভিডিওটি ভালভাবে খতিয়ে দেখলেও বোঝা যাবে কমপক্ষে ১৮টা ‘কাট’ রয়েছে সেখানে। অর্থাৎ ভিডিওটি এডিট করে চালানো হয়েছে। ভিডিও প্রতিবাদ জানান অনেকেই। বন্দি অবস্থায় এইভাবে ভিডিও বানিয়ে প্রচার করে পাকিস্তান জেনেভা কনভেনশনের নিয়ম ভেঙেছেন বলেও অভিযোগ ওঠে।

এরপরই তড়িঘড়ি পাক সরকারের ট্যুইটার হ্যান্ডেল Govt Of Pakistan থেকে সরিয়ে নেওয়া হয় ওই ভিডিও।

ভিডিওর শুরুতে অভিনন্দনকে বলতে দেখা যায়, ‘আমার বিমানকে গুলি করে নামানো হয়েছিল৷ তারপর আমি প্যারাশুটে করে নিচে নামি৷ স্থানীয় জনতা আমার দিকে ছুটে আসে৷ তাদেরকে থামাতে আত্মরক্ষার জন্য আমি নিজের সার্ভিস রিভলবার ফেলে দিই৷ এরপর উত্তেজিত জনতা আমার উপর চড়াও হয়৷ পাকিস্তানের দুই সেনা অফিসার ওই জায়গা থেকে আমাকে উদ্ধার করে৷ পাক সেনা পেশাদার সেনা৷ আমি তাদের হেফাজতে শান্তিতেই ছিলাম৷’

এরপর উইং কমান্ডারকে বলতে শোনা যায়, ভারতীয় মিডিয়া সবকিছুকে ফুলিয়ে ফাঁপিয়ে দেখানো হয়৷ সম্পূর্ণ ভিডিওটির মধ্যে এক দুটি জায়গায় কাট রয়েছে৷ মাঝখানের কিছু কথা বাদ দেওয়া হয়েছে তা বোঝা যাচ্ছে৷ ওই ভিডিও পাক সংবাদমাধ্যমগুলি শেয়ার করতে শুরু করেছে৷ যা কিছুক্ষণের মধ্যে ভাইরাল হয়েছে৷

অভিনন্দন ভারতে প্রবেশ করার ঠিক আগে ৯টা ১১ মিনিটে ভিডিওটি ট্যুইট করেছিল পাকিস্তান সরকার। এরপর রাত ১০ টার পর দেখা যায় ট্যুইটার হ্যান্ডেলে আর নেই ভিডিওতি। অর্থাৎ ডিলিট করে দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, অভিনন্দনের বারবার ভিডিও শুট করে জেনেভা কনভেনশনের ১৩ নম্বর ধারা উলঙ্ঘন করেছে পাকিস্তান৷