লাহোর: পুলওয়ামা জঙ্গি হামলা পরবর্তী ভারত-পাকিস্তান রাজনৈতিক উত্তেজনা ও উদ্ভূত যুদ্ধ পরিস্থিতির জেরে লাহোর থেকে সরে গেল পাকিস্তান সুপার লিগের ম্যাচ৷

আরও পড়ুন: ক্যাপ্টেনের সেঞ্চুরিতে দাপুটে জয় প্রোটিয়াদের

প্রাথমিকভাবে ঠিক ছিল পিএসএলের দু’টি কোয়ালিফায়ার, এলিমিনেটর ও ফাইনালসহ মোট আটটি ম্যাচ পাকিস্তানের মাটিতে অনুষ্ঠিত হবে৷ যার মধ্যে তিনটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল লাহোরের গদ্দাফি স্টেডিয়ামে৷ বাকি পাঁচটি ম্যাচ খেলা হওয়ার কথা ছিল করাচির ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে৷ কিন্তু পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে আটটি ম্যাচই খেলা হবে করাচিতে৷ লাহোর থেকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় তিনটি ম্যাচ৷

আরও পড়ুন: এশিয়ান গেমসে পদক জয়ের সুযোগ কোহলিদের সামনে

ভারতের বিরুদ্ধে সামরিক টানাপোড়েন শুরু হওয়া মাত্রই পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান পাকিস্তানের সমস্ত বিমানবন্দর বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশ দেন৷ ফলে টেলিভিশন সম্প্রচার সংস্থার পক্ষে ১৫ হাজার টন যন্ত্রপাতি বহন করে লাহোরে নিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়৷ করাচি বিমানবন্দর তুলনায় ভারতের সীমা থেকে দূরে অবস্থিত হওয়ায় সেখানে বিমান চলাচল পুনরায় শুরু হয়েছে৷

আরও পড়ুন: চোয়াল চাপা লড়াইয়েও ইনিংস হারের লজ্জায় টাইগাররা

স্বাভাবিকভাবেই লাহোরে ম্যাচ খেলা হলে তা টেলিভিশনে সম্প্রচার করা সম্ভব হত না৷ একারণেই লাহোর থেকে ম্যাচগুলি সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় করাচিতে৷ এ প্রসঙ্গে পিসিবি চেয়ারম্যান এহসান মানি বলেন, ‘এটা অত্যন্ত কঠিন সিদ্ধান্ত৷ পাকিস্তান ক্রিকেটের হেডকোয়ার্টার বঞ্চিত হচ্ছে পিএসএল ম্যাচ থেকে, এটা সত্যিই দুর্ভাগ্যজনক৷ তবে দেশের স্বার্থে এটুকু ত্যাগস্বীকার আমাদের করতেই হচ্ছে৷’