মেরঠ: কালীপুজোর পর থেকেই রাজধানী দিল্লিতে বেড়ে চলেছে বায়ু দূষণের পরিমাণ। গত তিন বছরের তুলনায় এই বছরের দূষণ এতটাই বেড়েছে যা নিয়ে উদ্বিগ্ন পরিবেশবিদরা৷ সরব রাজনৈতিক মহল থেকে শুরু করে সেলিব্রেটিরাও৷ দিল্লির আকাশে বায়ু দূষণের বাড়বাড়ন্তের জেরে সকলের মুখে পরিবেশ নিয়ে আরও সতর্ক হওয়ার বার্তা শোনা যাচ্ছে৷ তখন পুরো ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে এই দূষণের জন্য পাকিস্তান এবং চিনকে দায়ি করলেন উত্তরপ্রদেশের বিজেপি নেতা বিনীত আগরওয়াল সরদার।

মঙ্গলবার সংবাদ সংস্থা ‘এএনআই’কে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে উত্তরপ্রদেশের এই বিজেপি নেতা জানিয়েছেন, রাজধানী দিল্লির এত বায়ুদূষণের জন্য ভারতের প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তান এবং চিনই দায়ি । তিনি বলেন, পাকিস্তান এবং চিন ভারতকে ভয় পেয়েছে। যার কারণে, ওইসব প্রতিবেশী দেশ থেকে হয়ত কোনও বিষাক্ত গ্যাস ছাড়া হচ্ছে যার ফলে দিল্লির বাতাস এত পরিমাণে দূষিত হয়ে পড়েছে।

তিনি আরও বলেন দিল্লির বাতাস দূষণের জন্য প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তান কোনও রকম বিষাক্ত গ্যাস ছেড়েছে কিনা তা গুরুত্ব সহকারে খতিয়ে দেখা উচিত। বিনীত আগরওয়াল সারদার জানিয়েছেন, পাকিস্তান বহুবার ভারতের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার কথা ঘোষণা করেছে। কিন্তু পাকিস্তান যতবারই যুদ্ধ করতে চেয়েছে তত বারই ভারতের কাছে হেরে গিয়েছে। এবং বর্তমানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে দেখে কার্যত আরও হতাশ হয়েছে পাকিস্তান।

এদিকে দিল্লির বায়ু দূষণের জন্য পাঞ্জাব এবং হরিয়ানার কৃষকদের খড় পোড়ানোকে দায়ি করেছিলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। এদিন এই বিজেপি নেতা কেজরিওয়ালকেও একহাত করে নেন। তিনি বলেন, দিল্লির বায়ুদূষণের জন্য মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল সহ বেশ কিছু মানুষ হরিয়ানা এবং পাঞ্জাবের কৃষকদের খড় পোড়ানোকে দায়ি করছেন। এটা করা উচিত নয়৷ বিনীত আগরওয়াল বলেন, কৃষকরা হল দেশের শিল্পের মেরুদণ্ড, সব কিছুর জন্য তাঁদেরকে এইভাবে দোষারোপ করা উচিত নয়।

পাশাপাশি উত্তরপ্রদেশের বিজেপির ওই নেতা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে মহাভারতের শ্রীকৃষ্ণ ও অর্জুনের সঙ্গে তুলনা টেনে বলেন শ্রীকৃষ্ণ এবং অর্জুনের মতই প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দেশের সব সমস্যার সমাধান করবেন।