লাহোর: উত্তেজক জয় দিয়ে ঘরের মাঠে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে টি-২০ সিরিজ শুরু করল পাকিস্তান। লাহোরের গদ্দাফি স্টেডিয়ামে সিরিজের প্রথম টি-২০ ম্যাচে টাইগারদের ৫ উইকেটে পরাজিত করল বাবর আজমরা। সেই সঙ্গে ৩ ম্যাচের টি-২০ সিরিজে ১_০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল পাকিস্তান।

টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৪১ রান তোলে। দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও মহম্মদ নঈম ব্যাট হাতে লড়াই চালান। ক্যাপ্টেন মাহমুদুল্লাহ শেষ বেলায় আগ্রাসী ব্যাটিংয়ের চেষ্টা করেন।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তান ১৯.৩ ওভারে ৫ উইকেটের বিনিময়ে জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ১৪২ রান তুলে নেয়। দায়িত্ব নিয়ে দলকে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে দেন অভিজ্ঞ অল-রাউন্ডার শোয়েব মালিক। মাত্র ৩ বল বাকি থাকতে দলের উত্তেজক জয়ে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখেন এহসান আলি।

টাইগারদের হয়ে মহম্মদ নঈম সর্বোচ্চ ৪৩ রান করেন। ৪১ বল ক্রিজে কাটিয়ে তিনি ৩টি চার ও ২টি ছক্কা মারেন। তামিম ইকবাল করেন ৩৪ বলে ৩৯ রান। তিনি ৪টি চার ও ১টি ছক্কা মারেন। এছাড়া লিটন দাস ১৩ বলে ১২, আফিফ হোসেন ১০ বলে ৯, সৌম্য সরকার ৫ বলে ৭, মহম্মদ মিঠুন ৩ বলে ৫ রান করেন। মাহমুদুল্লাহ ১৪ বলে ১৯ রান করে অপরাজিত থাকেন। শাহীন আফ্রীদি, হ্যারিস রউফ ও শাদব খান ১টি করে উইকেট নেন। উইকেট না পেলেও কৃপণ বোলিং করেছেন ইমদ ওয়াসিম।

পাকিস্তানের হয়ে ওপেন করতে নেমে খাতা খুলতে পারেননি ক্যাপ্টেন বাবর আজম। অপর ওপেনার এহসান আলি করেন ৩২ বলে ৩৬ রান। মহম্মদ হাফিজের অবদান ১৬ বলে ১৭। ইফতিকার আহমেদ ও ইমদ ওয়াসিম যথাক্রমে ১৬ ও ৬ রান করে আউট হন। মহম্মদ রিজওয়ানকে সঙ্গে নিয়ে দলকে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে দেন শোয়েব মালিক। রিজওয়ান ৫ বলে ৫ ও শোয়েব ৪৫ বলে ৫৮ রান করে অপরাজিত থাকেন।

২টি উইকেট নিয়েছেন বাংলাদেশের শফিউল ইসলাম। ১টি করে উইকেট মুস্তাফিজুর, আল-আমিন ও আমিনুল ইসলামের। ম্যাচের সেরা হয়েছেন শোয়েব।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ