নয়াদিল্লি:  নতুন করে উত্তেজনা ছড়িয়েছে ভারত এবং পাকিস্তান সীমান্তে। গত কয়েকদিন আগে নিয়ন্ত্রন রেখা বরাবর পাকিস্তান সেনার ছোঁড়া মর্টার হানায় মৃত্যু হয়েছিল দুই ভারতীয় নাগরিকের। একজনের মুণ্ড ছেদ পর্যন্ত করা হয়। আর এই ঘটনার পিছনে রয়েছে পাকিস্তানের বর্ডার অ্যাকশন টিম অর্থাৎ ব্যাট। এমনটাই ভারতীয় সেনা সূত্রে জানা গিয়েছে। আর এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে নতুন করে উত্তেজনা তৈরি হয়েছে।

ঘটনার সামনে আসতেই সেনার তরফেও পাকিস্তানকে সাবধান করে দেওয়া হয়েছে। সুর চড়িয়েছেন ভারতীয় সেনাপ্রধান মনোজ মুকুন্দ নরবণে। একেবারে যোগ্য জবাব দেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি। সেনাপ্রধান জানিয়েছেন, একজন পেশাদার সেনাবাহিনীর কাজ কখনও এই রকম বর্বর হওয়া উচিত নয়। একেবারে মিলিটারি উপায়ে পাকিস্তানকে উপযুক্ত জবাব দেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন সেনাপ্রধান মনোজ মুকুন্দ নরবণে।

গত কয়েকদিন আগে ভারত এবং পাকিস্তানের নিয়ন্ত্রণরেখায় মোতায়েন সেনাদের জন্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র নিয়ে যাচ্ছিলেন একদল ব্যাক্তি। সীমান্তের ওপার থেকে তাঁদেরকে টার্গেট করে পাকিস্তান সেনা। ছোঁড়া হয় মর্টার। পাকিস্তান সেনার ছোঁড়া শেলিংয়ে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় মহম্মদ আসলাম (২৮) ও আলতাফ হুসেন (২৩) নামে দু’জনের। আহত হন আরও তিনজন। নাম গোপেন রাখার শর্তে এক পুলিশ আধিকারিক জানান, আইনি কাজকর্মের যখন আসলামের দেহ পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছিল, তখন তাঁর মুণ্ড ছিল না। যা বেশ সাময়িকভাবে সেনা আধিকারিকদের অবাকই করে। এরপরেই বিষয়টি নিয়ে তদন্তে নামে ভারতীয় সেনা।

জানা যাচ্ছে, ভারতীয় নাগরিকদের মুণ্ডচ্ছেদের ঘটনায় জড়িত পাকিস্তান সেনার স্পেশাল ফোর্স ব্যাট।

প্রসঙ্গত, বছর কয়েক আগে নিয়ন্ত্রণ রেখায় একইভাবে ভারতীয় সেনা জওয়ানের মুণ্ড কেটে নিয়েছিল পাকিস্তানি সেনা। সেই ঘটনা ঘিরে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে উত্তেজনা তৈরি হয়েছিল। ফের একই ঘটনার পুনঃরাবৃত্তি। জানা যাচ্ছে, এই ঘটনার পর সীমান্তে বাহিনীকে হাই অ্যালার্টে রাখা হয়েছে। এমন ঘটনা যাতে পাকিস্তান আর না ঘটাতে পারে সেজন্যে বিশেষ সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে সেনা-জওয়ানদের।