শ্রীনগর:  ভারত সফরে এসেছেন চিনের প্রেসিডেন্ট জি জিংপিং। একদিকে যখন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈঠক করছেন জিংপিং অন্যদিকে তখন ফের সংঘর্ষ বিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করল পাকিস্তান। ভারতীয় সেনা ছাউনি টার্গেট করে লাগাতার হেভি শেলিং শুরু করে পাকিস্তান সেনা। জম্মু-কাশ্মীরের নৌসেরা সেক্টরে এই হামলা চালায় পাকসেনা।

ভারতীয় সেনা সূত্রে খবর, পাক সেনার অতর্কিত হামলা ভারতীয় সেনার এক জওয়ান গুরুতর আহত হয়েছেন। আহত জওয়ানের নাম নায়েক সুভাষ থাপা। জখম এতটাই গুরুতর যে দ্রুত উধমপুরের কমান্ড হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁকে। জানা গিয়েছে, আহত জওয়ানের অবস্থা এখন কিছুটা স্থিতিশীল।

জানা গিয়েছে পাকিস্তান সেনার শেলিংয়ের জবাব কড়া ভাষায় দেয় ভারতীয় সেনাবাহিনী। পালটা প্রত্যাঘাতে সীমান্তের ওপারে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে বলে একটি সূত্রে জানা গিয়েছে। যদিও এখনও পর্যন্ত ভারতীয় সেনাবাহিনীর তরফে কোনও কিছুও জানানো হয়নি। যদিও একেবারে বিনা প্ররোচনাতে যেভাবে পাকিস্তান সেনা এদিন লাগাতার সংঘর্ষ বিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করেছে তাতে সতর্ক জারি করা হয়েছে ভারতীয় সেনাতে। কারণ বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই দেখা গিয়েছে সংঘর্ষ বিরতি চুক্তির আড়ালে জঙ্গিদের কভার ফায়ারিং দেয় পাকসেনা। আর সেই আড়ালে সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে অনুপ্রবেশ করে জঙ্গিরা। সে জন্যে সীমান্তের ওপার থেকে শেলিং শুরু হলেই বিশেষ অ্যালার্ট দেওয়া হয় ভারতীয় সেনাতে। শুধু তাই নয়, গোটা উপত্যকাতে এই অ্যালার্ট জারি করা থাকে।

অন্যদিকে, সেনা সূত্রে জানা গিয়েছে চলতি বছরেতর ১০ অক্টোবর পর্যন্ত বিনা প্ররোচনাতে ২৩১৭ বার সংঘর্ষ বিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করেছে পাকিস্তান সেনা। যার প্রত্যেকটিতে একেবারে কড়া ভাষায় ভারতীয় সেনার তরফে জবাব দেওয়া হয়েছে। শুধু তাই নয়, ভারতীয় সেনার একটি সূত্র জানাচ্ছে, এলওসি কিংবা বিভিন্ন সেনার অপারেশনে এখনও পর্যন্ত ১৪৭ জন জঙ্গিকে খতম করা হয়েছে। উপত্যকায় শান্তি বজায় রাখতে তা বড়সড় পদক্ষেপ বলেই মনে করছে সামরিকমহল।