ইসলামাবাদ: সীমান্তের ওপার থেকে প্রায়ই যুদ্ধের হুমকি শুনতে হয় ভারতকে। নয়াদিল্লির কাছে আসে একাধিক যুদ্ধ শুরুর বার্তা। পাকিস্তান নাকি টুকরো করে ফেলবে গোটা ভারতকে, এমনও হুঁশিয়ারি মেলে, তবে যুদ্ধের আসরে নামলে পাকিস্তান ঠিক কি করবে, তার পরিচয় নিজেরাই দিল ইসলামাবাদ। সূত্রের খবর ইজিপ্টের সঙ্গে চুক্তি করে বাতিল হয়ে যাওয়া যুদ্ধবিমান কিনছে পাকিস্তান।

দাসল্ট মিরাজ ৫ ফাইটার জেট কিনতে চলেছে পাকিস্তান, তবে একটা দুটো নয়, মোট ৩৬টি ফাইটার জেট কিনবে পাকিস্তান বলে জানা গিয়েছে। হাস্যকর বিষয় হল যে ফরাসি কোম্পানি এই ফাইটার জেটগুলি তৈরি করত, তারা নিজেরাই এই ফাইটার জেটের উৎপাদন বন্ধ করে দিয়েছে।এমন জেট কিনে পাকিস্তান ঠিক কি প্রমাণ করতে চাইছে, প্রশ্ন আন্তর্জাতিক মহলে। তবে ইসলামাবাদ সূত্রে খবর, এই বাতিল হয়ে যাওয়া জেটগুলি নাকি নিজেদের মতো করে আধুনিক করবে পাক বায়ুসেনা।

সূত্রের খবর, যে ভারতের সঙ্গে পাকিস্তান টেক্কা দিতে চাইছে, সেই নয়াদিল্লির হাতে রয়েছে মিরাজ ২০০০, যার ধারে কাছে আসে না মিরাজ ৫। এই মিরাজ ২০০০ দিয়েই ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে বালাকোট এয়ারস্ট্রাইক করিয়েছিল ভারত। ফলাফল গোটা বিশ্বের সামনে রয়েছে। এর পরে ভারত ফ্রান্স থেকে খুব তাড়াতাড়ি হাতে পেয়ে যাবে ফরাসি দাসল্ট রাফায়েল। যা অত্যাধুনিক ও বহুমুখি আক্রমণের ক্ষমতাসম্পন্ন ফাইটার যুদ্ধবিমান।

এছাড়াও ভারতকে আরও ৩৬টি রাফায়েল যুদ্ধবিমান বিক্রির পথে হাঁটতে চলেছে ফ্রান্স৷ জানা গিয়েছিল ফ্রান্সের থেকে ৩,০০০-এরও বেশি মিলান 2T অ্যান্টি ট্যাংক গাইডেড মিসাইল কিনতে চলেছে ভারতীয় সেনা৷ প্রায় ১,০০০ কোটি টাকার চুক্তি হয়েছে দুই দেশের মধ্যে। আর তার ভিত্তিতেই এই মিসাইল আসতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে৷

সূত্রের খবর ভারতীয় সেনার প্রায় ৭০,০০০ অ্যান্টি ট্যাংক গাইডেড মিসাইল (ATGM) প্রয়োজন এবং বিভিন্ন ধরণের ৮৫০ লঞ্চার প্রয়োজন এবং সেই সঙ্গে থার্ড জেনারেশন ATGM কেনার পরিকল্পনায় রয়েছে ভারতীয় সেনা৷ সেই সূত্রেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাম্প্রতিক ফ্রান্স সফরে উঠে এসেছিল অত্যাধুনিক যুদ্ধাস্ত্র ও বিমান কেনার প্রসঙ্গ৷ এই প্রসঙ্গে ফ্রান্সের সহযোগিতার কথা জানিয়েছিলেন ফরাসী প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রঁ৷