ইসলামাবাদ: জঙ্গিদমন অভিযানে বড় সাফল্য পেয়েছে ভারতের সেনাবাহিনী৷ তিন সেনা জওয়ানের প্রাণের বিনিময়ে ১৩ জঙ্গিকে নিকেশ করেছে ভারতীয় সেনা৷ কিন্তু এই জঙ্গি দমন অভিযানের নামে ভারত কাশ্মীরে নৃশংস হত্যালীলা চালিয়েছে৷ এমনটাই অভিযোগ তুলল পাকিস্তান৷

শনিবার গভীর রাত থেকে জঙ্গিদের সঙ্গে সংঘর্ষে রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে কাশ্মীর৷ দক্ষিণ কাশ্মীরের সোপিয়ান ও অনন্তনাগে তিনটি পৃথক এনকাইন্টারে ১৩ লস্কর ও হিজবুল জঙ্গিকে খতম করেছে ভারতীয় সেনা৷ সাম্প্রতিককালে কাশ্মীরে জঙ্গি দমন অভিযানে এটাই বড় সাফল্য ভারতীয় সেনার৷ জঙ্গিদের সঙ্গে গুলির বিনিময়ের সময় প্রাণ যায় চার সাধারণ নাগরিকের৷ এই অপারেশনে শহিদ হন তিন সেনা জওয়ান৷

এরপরই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শহিদ আব্বাস খাক্কান এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেন৷ ভারতের বিরুদ্ধে  কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, কাশ্মীরের জনসাধারণের উপর বর্বরোচিত আক্রমণ করা হয়েছে৷ ভারত নৃশংশ হত্যালীলা চালিয়েছে সেখানে৷ ছররা প্রয়োগ করা হয়েছে৷ ছররার আঘাতে কাশ্মীরিরা গুরুতর আহত হয়েছেন৷ তাদের কয়েকজনের অবস্থা সংকটজনক৷

শুধু পাক প্রধানমন্ত্রী নয়, বিদেশমন্ত্রী খওয়াজা এম আসিফ টুইট করে এই ঘটনাকে উপত্যকার কালো দিন বলে অভিহিত করেন৷ তিনি দাবি করেন, দক্ষিণ কাশ্মীরে ২০ জন শহিদ এবং ৩০০ জন জখম হয়েছেন৷ পাঁচটি বাড়ি ধুলিসাৎ হয়ে গিয়েছে৷ কাশ্মীরের কাছে দিনটি কালো দিন হয়ে থাকবে৷ তেহরিক-ই-ইনসাফ প্রধান ইমরান খানও এই ঘটনার নিন্দা করেন এবং ইউনাইটেড নেশনকে কাশ্মীরে হস্তক্ষেপ করার দাবি জানান৷