ইসলামাবাদ: কালো নয়, সাবধান করেই পাকিস্তানকে ‘ধূসর তালিকা’য় রেখেছে Financial Action Task Force(FATF)৷

৮টি দেশ পেরিয়ে নবমে পাকিস্তান৷ তার আগে রয়েছে ইথিওপিয়া, সার্বিয়া, শ্রীলঙ্কা, সিরিয়া, ত্রিনিদাদ, টোবাগো, টিউনেশিয়া, ইয়েমেন৷

প্রথমে পাকিস্তানকে কালো তালিকাভুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। পরে সিদ্ধান্তের বদল ঘটে৷ সাবধান করেই পাকিস্তানকে ধূসর তালিকায় রাখে (FATF)৷ ২৪ জুন পাকিস্তানকে তালিকাভুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেয় FATF৷ তার আগেই সন্ত্রাসবাদী সংগঠনগুলিকে আর্থিক খাতে বয়কট করার আশ্বাস দেয় ইসলামাবাদ৷ এই প্রথম কাগজে কলমে মোট ২৬ টি পদক্ষেপ প্রকাশ্যে আনে পাকিস্তান৷

প্রথমে ১৫ মাস অর্থাৎ ২০১৯-র সেপ্টেম্বরের মধ্যে পাকিস্তানকে ২৬ পদক্ষেপ সম্পূর্ণ করার কথা জানায় FATF৷ কিন্তু, পাকিস্তানের আর্থিক নীতিতেও কারচুপির খোঁজ মেলে৷ চিনের কাছে ঋণগ্রস্ত পাকিস্তান এখনও টাকা নিয়েই চলেছে৷ অথচ বন্ধ হচ্ছে না হাফিজদের আর্থিক অনুদান৷ তাই, দেরি না করেই পাকিস্তানকে কালো তালিকায় আনার সিদ্ধান্ত নেয় FATF৷ পরে সিদ্ধান্ত বদলে কোনওরকমে সুরক্ষিত তালিকায় রাখা হয় পাকিস্তানকে৷

পাকিস্তানকে তালিকাভুক্ত করার তিনটি প্রধান কারণ-

১.নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন জামাত উদ দাওয়া, লস্কর, জইশকে অর্থ সাহায্য করছে পাকিস্তান৷ নিষিদ্ধ ঘোষণার পর পাকিস্তানের পঞ্জাব প্রদেশ সরকারের সাহায্য পাচ্ছে জঙ্গি সংগঠনগুলি৷ পরে, পাকিস্তান সরকারই সংগঠনগুলির পাশে দাঁড়ায়৷ ২০০৯ সালে সেই ঘোষণাও করে পঞ্জাব সরকার৷

২. রাষ্ট্রসংঘের ঘোষণার পরও সাবধান হয়নি পাকিস্তান৷ নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠনকে আর্থিক সাহায্য শুধুই নয়, সরকারি বৈঠকেও আন্তর্জাতিক স্তরে নিষিদ্ধ জঙ্গি নেতা ও মুম্বই হামলার মাস্টার মাইন্ড হাফিস সঈদকে দেখা যায়৷

৩.২০১৭-র ডিসেম্বর, হাফিজ সঈদ নিয়ে ফের সাবধান বার্তা পায় পাকিস্তান৷ তার ঠিক ৫ মাস বাদে হাফিজ ইসলামাবাদের নিজের পরিচালিত দল মিল্লি মুসলিম লীগের অফিস খোলে৷

১৯৮৯ সালে আর্থিক কারচুপি,জঙ্গি সংগঠনগুলিকে আর্থিক সাহায্যের মত বিষয়গুলি থেকে আটকাতে আন্তর্জাতিক স্তরে গঠিত হয় Financial Action Task Force৷ যে দেশগুলি আন্তর্জাতিক নিয়মের তোয়াক্কা না করে জঙ্গি সংগনগুলিকে আর্থিক সাহায্য করছে তাদের কালো তালিকায় আনছে Financial Action Task Force৷ প্যারিসে সেই FATF-র সম্মেলনে পাক প্রশাসকরা জানান, তাদের সময় দেওয়া হোক৷ আবেদনের জেরে কালো তালিকাভুক্ত থেকে বাঁচলেও, আন্তর্জাতিক স্তরে মুখ পুড়েছে পাকিস্তানের৷ ২৫ জুলাই সাধারণ নির্বাচন, তার আগে FATF -এ পড়ল পাকিস্তান৷ FATF -র এই পদক্ষেপের প্রশংসা করেছে সাউথ ব্লকও৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.