নিউইয়র্ক: আমেরিকায় নিযুক্ত পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূত আসাদ মাজিদ খান আশংকা করছেন, কাশ্মীরের পরিস্থিতির অবনতি হতে পারে। সেক্ষেত্রে তাঁর দেশ আফগান সীমান্ত থেকে সেনা সরিয়ে নিয়ে আসবেন কাশ্মীর সীমান্তে মোতায়েন করবে। আর তেমন হলে তালিবান ও আমেরিকার মধ্যে শান্তি আলোচনা ভেস্তে যেতে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে । যেখানে দু পক্ষের আলোচনা শেষ পর্যায়ে রয়েছে।

নিউ ইয়র্ক টাইমসকে সোমবার মাজিদ খান এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, কাশ্মীর ও আফগানিস্তান দুটি আলাদা ইস্যু৷ তিনি আদৌ এ দুটোকে এক করতে চান না। তার দেশ আমেরিকা ও তালিবানের আলোচনায় সফল হোক চায়৷ তা সত্ত্বেও পাক রাষ্ট্রদূতের বক্তব্য, অধিকৃত কাশ্মীরে ভারতীয় দমন-পীড়ন শুরু হয়েছে।

এরই রেশ ধরে তিনি আরও জানান, পশ্চিম সীমান্তে বিপুল সেনা মোতায়েন করা রাখা হয়েছে । তবে কাশ্মীর পরিস্থিতি যদি অবনতি ঘটে তাহলে সেই সেনা পূর্ব সীমান্তে পুনঃমোতায়েন করা হবে৷ তিনি জোর দিয়ে বলেন, ইসলামাবাদ এই মুহূর্তে পূর্ব সীমান্ত ছাড়া অন্য কিছু ভাবছে না।

প্রসঙ্গত, ভারতে মোদী সরকার সম্প্রতি কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা আর্টিকেল ৩৭০ বিলোপ করেছে ৷ তার প্রেক্ষিতেউ পাক রাষ্ট্রদূতের আশংকা উপত্যকার পরিস্থিতির অবনতি ঘটবে। তবে কী ধরনের অবনতি ঘটবে তা তিনি বলতে অস্বীকার করেন। মাজিদ খান জানান, দুটিই বড় দেশ এবং উভয়েই পরমাণু শক্তিধর ও বিশাল সামরিক বাহিনী রয়েছে৷ তাছাড়া রয়েছে সংঘাতের ইতিহাস রয়েছে।