ইসলামাবাদ: আন্তর্জাতিক আদালতের শর্ত মেনে সেনা আইনে সংশোধন আনছে পাকিস্তান সরকার। এই তথ্য প্রকাশ্যে আসার পরই সেই কথা অস্বীকার করল পাকিস্তান। পাকিস্তান সেনার তরফ থেকে ‘জল্পনা’র তকমা দেওয়া হয়েছে।

পাকিস্তান সেনার মুখপাত্র আসিফ গফুর জানিয়েছেন, “ইমরান খান সরকার সেনা আইনে সংশোধন আনার কথা ভাবছে যাতে আন্তর্জাতিক আদালতের রায় কুলভূষণ যাদব মামলায় লাগু করা যায়।” পাশাপাশি এও জানানো হয়েছে এই বিষয়ে যা রিপোর্ট পাওয়া গিয়েছে তা সম্পূর্ণ ‘ভুয়ো’।

আসিফ গফুর ট্যুইট করে জানিয়েছেন, “পাক সেনা আইন সংশোধন নিয়ে যে জল্পনা হচ্ছে তা সম্পূর্ণ ভূল।” ঠিক একদিন আগে সংবাদসংস্থা জানিয়েছিল, পাক সরকার প্রকাশ্যে এই সংশোধনী আনতে চলেছে তা জানিয়েছিল।” সিভিলিয়ান কোর্টে কুলভূষণ যাদব মামলার জন্য আপিল জানাতে পারার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা ভাবা হচ্ছে তেমনটাও জানা গিয়েছিল সূত্র মারফত।

বুধবার সকালেই জানা যায় যে, আন্তর্জাতিক আদালতের শর্ত মেনে সেনা আইনেই সংশোধন আনছে পাকিস্তান সরকার। ডন, এক্সপ্রেস ট্রিবিউন সহ বিভিন্ন পাক সংবাদ মাধ্যমের রিপোর্ট,এই সংশোধনী গৃহীত হওয়ার পরে ভারতীয় গুপ্তচর সন্দেহে বন্দি কুলভূষণ যাদব নিজেই তাঁর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের বিরুদ্ধে পাক আদালতে আপিল করতে পারবেন। ভারতীয় নৌ সেনার প্রাক্তন এই অফিসারকে ইরানের দিক থেকে পাকিস্তানে অবৈধ উপায়ে প্রবেশের অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়। পাক সরকারের দাবি, বন্দি কুলভূষণ যাদব বালোচিস্তানের বিদ্রোহীদের হয়ে নাশকতার ছক করেছিলেন।

জানা গিয়েছে, পাক সেনা আইনে সংশোধ হলেই কুলভূষণ যাদব সরাসরি নিজের হয়ে পাক নাগরিক আদালতেই আপিল করতে পারবেন। পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম জানাচ্ছে, সেনা আইনে মামলা চলছে এমন কেউ নাগরিক আদালতে আবেদন করতে পারেনা। তবে কুলভূষণের জন্য সেই আনে সংশোধন করা হচ্ছে। আইনের সংশোধনী আনতে পাক আইনসভার অনুমোদন ও সেনা কর্তাদের রাজি হতে হবে। তারও সবুজ সংকেত মিলবে দ্রুত।