মস্কো: ফিটনেস নিয়ে সংশয় ছিলই৷ তবে মাঠের বাইরের শৃঙ্খলাজনীত কারণে মেক্সিকোর বিরুদ্ধে জার্মানির প্রথম বিশ্বকাপ ম্যাচে রিজার্ভ বেঞ্চে জায়গা হতে পারে মেসুট ওজিলের৷ একই কারণে প্রথম একাদশ থেকে ছেঁটে ফেলা হতে পারে ম্যান সিটির মিডফিল্ডার গুনদোয়ানকে৷

ওজিলকে ছাড়া এখনও পর্যন্ত কোনও বড় ম্যাচের প্রথম একাদশ সাজাননি কোচ জোয়াকিম লো৷ বড় ম্যাচের প্লেয়ার হিসাবে কোচের কাছে গুরুত্ব পান বলেই প্রিমিয়র লিগের শেষ দিকে পিঠে চোট পাওয়া সত্ত্বেও বিশ্বকাপের প্রাথমিক স্কোয়াডে জায়গা পেয়েছিলেন ওজিল৷ এমনকি পরের দিকে হাঁটুতে সমস্যা দেখা দেওয়ার পরেও বিশ্বকাপের চূড়ান্ত দলে রয়েছেন তিনি৷

এমনিতেই ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের বিশ্বকাপ অভিযান শুরুর ম্যাচে ওজিলের মাঠে নামা পুরোপুরি নিশ্চিত ছিল না৷ তার উপর তাঁকে নিয়ে সমর্থদরে মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দেওয়ায় ক্ষুব্ধ জার্মান কোচ৷

বিশ্বকাপের ঠিক আগে তুরস্কের রাষ্ট্রপতি এর্দোয়ানের সঙ্গে ওজিল এবং গুনদোয়ান দেখা করেন৷ ছবিও তোলেন৷ সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই আলোড়ন তৈরি হয় জার্মান সমর্থকদের মধ্যে৷ জার্মান জনমানসে তুর্কি রাষ্ট্রপ্রধানের ভাবমূর্তী মোটেও ইতিবাচক নয়৷ বরং এর্দোয়ানের সাম্প্রতিক কার্যকলাপ নিয়ে ক্ষুব্ধ জার্মানরা৷ এ হেন বিকর্তিক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের সঙ্গে বিশ্বকাপের আগে দুই ফুটবল তারকার বৈঠককে ভালো চোখে দেখছেন না কেউই৷

প্রচণ্ড বিরক্তি নিয়ে দলের দুই ফুটবলারকে এমন কাজ থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন জোয়াকিম লো৷ ওজিলের উপর তিনি এতটাই খাপ্পা যে, তাঁকে মেক্সিকে ম্যাচে ডাগ আউটে বসিয়ে রাখতে পারেন৷ অন্তত প্রথম একাদশে ওজিলকে দেখতে পাওয়ার সম্ভাবনা কম বলেই খবর৷ একই রকম শাস্তির মুখে পড়তে হতে পারে তুর্কি রাষ্ট্রপ্রধানকে জার্সি উপহার দেওয়া গুনদোয়ানকেও৷ তাঁকেও মেক্সিকো ম্যাচের প্রথম একাদশ থেকে সরিয়ে রাখা হতে পারে৷