স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: পশ্চিমবঙ্গের আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে লড়াই করবে আসাদুদ্দিন ওয়াইসির দল অল ইন্ডিয়া মজলিস–ই–মুত্তেহাদিন মুসলিমিন (মিম)। একুশের বিধানসভা নির্বাচনে সবকটি আসনেই প্রার্থী দেওয়ার কথা ভাবছে ওয়াইসির মিম। জানুয়ারি মাস থেকেই তার প্রস্তুতি শুরু করতে চলেছে তারা৷ দলের সভাপতি সাংসদ আসাউদ্দিন ওয়াইসি শহরে এলেই ব্রিগেড সমাবেশের আয়োজন করবে এআইএমআইএম৷

পশ্চিমবঙ্গে সংগঠনের দায়িত্বপ্রাপ্ত জমিরুল হাসান জানিয়েছেন, “নতুন বছরে জানুয়ারি মাসের প্রথম দিকে কলকাতায় আসছেন দলের সভাপতি সাংসদ আসাউদ্দিন ওয়াইসি”। তিনি আরও বলেন, “তখন উদ্বোধন হবে দলের রাজ্য দফতরের। শুধু তাই না ব্রিগেড সমাবেশ হওয়ারও কথা রয়েছে।”জানা যাচ্ছে, সংগঠনের যাত্রা শুরু হবে ব্রিগেডে ধামাকা সমাবেশের মাধ্যমে।জমিরুল হাসানরা আশা করছেন, ব্রিগেড সামবেশে তিল ধারণের জায়গা থাকবে না। লক্ষাধিক আদিবাসী মানুষও আসবেন ওই সমাবেশে। তাছাড়া ব্লক ভিত্তিক সংগঠনের কাজও চলছে। ওই সফরে এসে রাজ্য দফতরের উদ্বোধনও করবেন আসাউদ্দিন ওয়েইসি।

২০২০-এর জানুয়ারি থেকে পুরোদমে এ রাজ্যে রাজনৈতিক কার্মসূচি শুরু করতে চলেছে এআইএমআইএম। যদিও ইতিমধ্যেই রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় মিছিল-মিটিং শুরু করে দিয়েছে এমআইএম। তেলেঙ্গানা ভিত্তিক এই দলের এ রাজ্যে আগমন নিয়ে রাজনৈতিক মহলে চর্চা শুরু হয়েছে।

কদিন আগেই তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এআইএমআইএমকে কটাক্ষ করে বলেছেন, ‘কেউ কেউ হায়দরাবাদ থেকে টাকার থলি নিয়ে এসে মিটিং করে বলছে, তোদের জন্য লড়ব। কী করে লড়বে? তোমরা যে বিজেপির সব থেকে বড় দালাল। লড়লে আমরাই লড়ব।’ মমতার সতর্কবাণী, ‘কোনও অপপ্রচারে পা দেবেন না। কেউ কেউ বাইরে থেকে এসে মিটিং করে উস্কানি দেবে। আমরা কোনও সাম্প্রদায়িকতাকে প্রশ্রয় দিই না। সে হিন্দুই হোক বা মুসলমান।’

তবে এ রাজ্যে তৃণমূল কংগ্রেসকে তাঁরা আদৌ ভয় পাচ্ছেন না বলেও স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন জমিরুল ইসলাম।পশ্চিমবঙ্গে এআইএমআইএম-এর পর্যবেক্ষক পদে রয়েছেন সৈয়দ ওয়াসিম ওয়াকার। তাঁর নির্দেশে এখন এই রাজ্যে সংগঠন তৈরির কাজ চলছে। জমিরুল জানান, তিনি নন্দীগ্রাম আন্দোলনের সময় তৃণমূল কংগ্রেসেই ছিলেন। তবে সিঙ্গুর আন্দোলন মেনে নিতে পারেননি।

তবে আগামী বছর বাংলার নতুন রাজনৈতিক দলের উত্থান কেমন হয়, সেদিকেই তাকিয়ে রয়েছে রাজনৈতিক মহল৷