কলকাতা: এতদিন রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল বিজেপি ও বিরোধী দল নিয়ে সুর চড়িয়েছে৷ এবার আরও একটি রাজনৈতিক দল তাদের মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাড়িয়েছে৷ এটি হল অল ইন্ডিয়া মজলিশ-এ-ইত্তেহাদুল মুসলিমিন বা এআইএমআইএম৷

সূত্রের খবর, আগামী জানুয়ারিতে এই সংগঠনটি কলকাতার ব্রিগেডে জনসভা করতে চায়৷ ইতিমধ্যেই সেনাবাহিনীর অনুমতি চেয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে৷ সেনাবাহিনী তাদেরকে সভার অনুমতি না দিলে,আদালতের দ্বারস্থ হতে পারে এআইএমআইএম৷ ২০২০ সালের ১৫-২০ জানুয়ারির মধ্যে যে কোনও দিন ব্রিগেডে সভা করতে চান৷

এআইএমআইএম এর এক রাজ্য নেতার দাবি, ব্রিগেডে ৮-১০ লক্ষ লোকের জমায়েত হবে৷ ওই সমাবেশে অল ইন্ডিয়া মজলিশ-এ-ইত্তেহাদুল মুসলিমিন বা এআইএমআইএম প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়েইসি নিজে উপস্থিত থাকবেন৷ সভার মাধ্যমে তারা এই রাজ্যে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড শুরু করতে চান৷ আগামী পুরভোটেও অংশগ্রহণ করবে এই দল৷ তারপর ২০২১ সালের বিধানসভা ভোটে লড়বেন তারা৷

আরও পড়ুন – সরকারে বসতেই বড় ধাক্কা, শিবসেনা ছেড়ে বিজেপিতে শত শত কর্মী

২০২০-এর জানুয়ারি থেকে পুরোদমে এ রাজ্যে রাজনৈতিক কার্মসূচি শুরু করতে চলেছে এআইএমআইএম। যদিও ইতিমধ্যেই রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় মিছিল-মিটিং শুরু করে দিয়েছে এমআইএম। তেলেঙ্গানা ভিত্তিক এই দলের এ রাজ্যে আগমন নিয়ে রাজনৈতিক মহলে চর্চা শুরু হয়েছে।

কদিন আগেই তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এআইএমআইএমকে কটাক্ষ করে বলেছেন, ‘কেউ কেউ হায়দরাবাদ থেকে টাকার থলি নিয়ে এসে মিটিং করে বলছে, তোদের জন্য লড়ব। কী করে লড়বে? তোমরা যে বিজেপির সব থেকে বড় দালাল। লড়লে আমরাই লড়ব।’ মমতার সতর্কবাণী, ‘কোনও অপপ্রচারে পা দেবেন না। কেউ কেউ বাইরে থেকে এসে মিটিং করে উস্কানি দেবে। আমরা কোনও সাম্প্রদায়িকতাকে প্রশ্রয় দিই না। সে হিন্দুই হোক বা মুসলমান।’