file pic

লখনউ: নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের সমর্থনে উদ্বাস্তদের চিহ্নিত করে সিএএ লাগু করার প্রক্রিয়া শুরু করেছে উত্তরপ্রদেশ সরকার, এমনটাই জানিয়েছেন রাজ্যের মন্ত্রী শ্রীকান্ত শর্মা।

সোমবার তিনি বলেছেন, “নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে কেন্দ্রের নোটিশ উত্তরপ্রদেশের সব জেলায় পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। সকল জেলাশাসকদের তথ্য সংগ্রহেরও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে”।

এছাড়াও তিনি বলেন, প্রথম তালিকায় ৩২ হাজারের বেশি উদ্বাস্তুদের চিহ্নিত করা হয়েছে। উত্তরপ্রদেশের মোট ২১টি জেলা থেকে এদের চিহ্নিত করা হয়। এছাড়া গোটা রাজ্য জুড়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। উত্তরপ্রদেশে মোট ৭৫ টি জেলা আছে।

৩২ হাজার উদ্বাস্তুরা কোথাকার জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি স্পষ্ট বলেন, “এরা সকলেই আফগানিস্তান, পাকিস্তান এবং বাংলাদেশের”।

প্রথম তালিকায় যে সব জেলাগুলি রয়েছে সেগুলি হল- সাহারানপুর, গোরক্ষপুর, আলিগড়, রামপুর, প্রতাপগড়, পিলিভিট, লখনউ, বারানসি, বাহারাইচ, লক্ষ্মীপুর, রামপুর, মিরাট, আগ্রা।

সূত্রের খবর, পিলিভিটে সবচেয়ে বেশি উদ্বাস্তদের চিহ্নিত করা হয়েছে। যদিও সঠিক কোন সংখ্যা জানা যায়নি। রাজ্য সরকারের তরফে তা শীঘ্রই জানানো হবে।

সরকারি পরিসংখ্যান সম্পর্কে জানতে চাইলে শ্রীকান্ত শর্মা জানিয়েছেন, “চিহ্নিতকরণ প্রক্রিয়া চলছে, তথ্য এলেই তালিকা আপডেট করা হবে”।

নাগরিক অধিকার মঞ্চ নামের একটি এনজিও ১১৬ পাতার একটি রিপোর্ট তৈরি করেছে যেখানে বলা হয়েছে, “পাকিস্তান, আফগানিস্তান এবং বাংলাদেশ থেকে আসা উদ্বাস্তুদের উৎপীড়নের গল্প কেন্দ্রীয় সরকার এবং উত্তরপ্রদেশ সরকারকে পাঠানো হয়েছে বলেই উল্লেখ করা হয়েছে”। তবে রাজ্যের তরফে তা গ্রাহ্য করা হবে কিনা সে বিষয়ে কিছু জানানো হয়নি।