মুম্বই: প্লাস্টিক পরিবেশের বড় শত্রু। তাই প্লাস্টিক দূষণের হাত থেকে পরিবেশকে রক্ষা করতে একের পর এক উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে সরকারি ও বেসরকারি ভাবে। তবে এবার এই উদ্যোগে সামিল রিলায়েন্স-ও। পরিবেশকে স্বচ্ছ রাখতে ৭৮ টন প্লাস্টিক বোতল কুড়ালেন ৩ লক্ষেরও বেশি কর্মচারী, তাঁর পরিবারের সদস্যরা। ৩৯ লাখ বোতল সংগ্রহ করে রেকর্ড গড়েছেন তাঁরা।

অক্টোবর মাসে ‘রিসাইকেলফরলাইফ’ নামের এই প্রোজেক্টটি শুরু করেছিলেন রিলায়েন্স ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান নীতা আম্বানি ৷ শনিবার এই বিপুল সংখ্যক বোতল পুনঃনবীকরণের কাজের শুরু করেন তিনি। আমাদের চারপাশের পরিবেশ আরও সবুজ করে তুলতেই এহেন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে রিলায়েন্সের তরফে।

রিলায়েন্স কোম্পানির ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান নীতা আম্বানি বলেন, রিলায়ন্স ফাউন্ডেশনে আমরা সকলে বিশ্বাস করি পরিবেশের যত্ন নেওয়াই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজ। ” পাশাপাশি তিনি বলেন, আমরা আমাদের ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য আরও ভাল, উজ্জ্বল, ক্লিনার এবং সবুজ রঙের বিশ্ব গঠনে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।”

জানা গিয়েছে, আপাত অপ্রয়োজনীয় বর্জ্য প্লাস্টিকের বোতলগুলি পরিবেশ-বান্ধব প্রক্রিয়ার মাধ্যমে রিসাইক্লিং করে আবার পুনর্ব্যবহারের যোগ্য করে তোলা হবে। উল্লেখ্য, কেন্দ্রের অধীনস্থ প্রকল্প ‘স্বচ্ছতা হি সেবা’-র অংশ হিসেবে রিলায়েন্স ‘রিসাইকেলফরলাইফ’ প্রোগ্রামে জয়েন করেছিল।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।