নয়াদিল্লি: এই মুহূর্তে আধার কার্ড সাধারণ মানুষের কাছে অতি গুরুত্বপূর্ণ। কেন না প্যান কার্ডের আবেদন, আয়কর রিটার্ন ফাইল থেকে শুরু করে গ্যাসের ভর্তুকি সকল ক্ষেত্রেই আধার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। এছাড়াও এই মুহূর্তে সচিত্র পরিচয়পত্রেরও কাজ করে থাকে আধার। যদিও সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে জানানো হয়েছিল সব ক্ষেত্রে আধার ব্যবহার বাধ্যতামূলক নয়। আর এবারে আধার কার্ড নিয়ে ইউআইডিএআই নিয়ে এল এক অবাক তথ্য।

ইউনিক আইডিন্টিটিফিকেশন অথরিটি অফ ইন্ডিয়া বা (ইউআইডিএআই) একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেছে যাতে জানানো হয়েছে এখনও পর্যন্ত প্রায় ১২৫ কোটি মানুষ পেয়েছেন আধার কার্ড। আর এই রিপোর্ট তৈরি করা হয়েছে আধার কার্ডের তৈরির সময় থেকে বর্তমান বছর পর্যন্ত। এছাড়াও জানানো হয়েছে প্রতিদিন প্রায় তিন কোটির কাছাকাছি আধার কার্ডের আবেদন জমা পরেছে।

এছাড়াও কার্ড আপডেটের ক্ষেত্রেও জানা গিয়েছে একই পরিসংখ্যান। এখনও পর্যন্ত প্রায় ৩৩১ কোটি আধার সফল ভাবে আপডেট করা হয়েছে। জানানো হয়েছে প্রতিদিন প্রায় তিন থেকে চার লক্ষ আধার আপডেটের আবেদন জমা পরেছে। ২০০৯ সালে দেশ জুড়ে প্রথম এই আধারের কাজ শুরু হয়। যা এই মুহূর্তে বিশ্বের বৃহত্তম বায়োমেট্রিক আইডিন্টিটিফিকেশন নম্বর।

আগেই আধার সংক্রান্ত নিয়ম কিছুটা হলেও নরম করেছিল কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্র জানায়, আধার কার্ডের সাহায্যে খোলা যাবে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট । এছাড়াও নেওয়া যাবে অন্যান্য অর্থনৈতিক পদক্ষেপও। এই নয়া সুবিধার ফলে বিভিন্ন কাজের জন্য যারা বাইরে থাকেন তাঁদেরও নানা সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়। ব্যাংক ও অন্যান্য জায়গায় কেওয়াইসি জমা দিতে গেলে সমস্যার মুখোমুখি হতে হয় অনেককে। এই নয়া সুবিধার ফলে সুবিধা পাবেন সাধারণ মানুষ।

এছাড়াও জানানো হয়েছে এখনও পর্যন্ত ৩৭ হাজার কোটিবার আধার নথি যাচাইয়ের পরিষেবা ব্যবহার করা হয়েছে। এছাড়াও আগেই জানানো হয়েছিল আধার কার্ডের সঙ্গে প্যান কার্ডের নম্বর যোগ করার জন্য নিয়ে এসেছিল ডিজিটাল ব্যবস্থা।