ওয়াশিংটন: একদিনে বাঙালির উৎসবের শুরু। অতিমারীর মধ্যেও সাজো সাজো রব। তবে সেই দেবী দুর্গাই এবার আলোড়ল ফেললেন মার্কিন মুলুকে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনেও দেবী দুর্গাকে নিয়ে হইচই।

মার্কিন নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট শিবিরের ভাইস প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী ভারতীয় বংশোদ্ভূত কমলা হ্যারিস। তাঁকেই দুর্গার রূপ দেওয়া হয়েছে একটি ছবিতে। বাহন সিংহের মুখের জায়গায় প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী জো বিডেন। আর অসুর হলেন‌ বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এমনই একটি ছবিতে শোরগোল পড়ে গেল মার্কিন মুলুকে।

ছবিটি টুইট করেছিলেন কমলা হ্যারিসের ভাগ্নি মিনা হ্যারিস। পরে বিতর্কের মুখে পড়ে তা মুছে দিলেও আলোচনা থামছে না। সরব হয়েছে বেশ কিছু হিন্দুত্ববাদী সংগঠনও।

সামনেই আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পে প্রতিদ্বন্দ্বী জো বিডেন। তবে এই নির্বাচনে অন্যতম জনপ্রিয় মুখ হয়ে উঠেছেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত কমলা হ্যারিসই। ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে প্রথম থেকেই সরব তিনি। তবে এবার সেই কমলা হ্যারিসই জড়ালেন বিতর্কে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় এদিন তাঁর ওই ছবিটি রীতিমতো ভাইরাল হয়। যেখানে কমলা হ্যারিসকে দেবী দুর্গা, জো বিডেনকে তাঁর বাহন সিংহ এবং ডোনাল্ড ট্রাম্পকে অসুর হিসেবে দেখানো হয়। ছবিটি শেয়ার করেন খোদ তাঁর ভাগ্নি মিনা। এই ছবি প্রকাশ্যে আসতেই আমেরিকায় বসবাসকারী হিন্দু সংগঠনের সমস্ত সদস্যরা প্রচণ্ড ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তারা দাবি করেন, এই ছবি প্রকাশ করে তাঁদের দেবীকে অপমান করা হয়েছে। যিনি টুইট করেছেন তাকে তো ক্ষমা চাইতে হবে, অন্যদিকে কমলা হ্যারিসকেও ক্ষমা চাইতে হবে।

যদিও মার্কিন নির্বাচনে ভারতীয় ভোটের গুরুত্বের কথা মাথায় রেখেই বিগত কিছুদিন ধরে হিন্দু সংগঠনের সদস্যদের সঙ্গে সময় কাটাচ্ছেন বিডেন এবং হ্যারিস।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.