হায়দরাবাদ: মোদী বিরোধী মহাজোট আরও শক্ত করতে অবিজেপি দলগুলির সঙ্গে বৈঠকে বসার ডাক দিলেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবুর নাইডু৷ আগামী ২২ নভেম্বর দিল্লির অন্ধ্রপ্রদেশ ভবনে হবে এই বৈঠক৷ ওইদিন অবিজেপি জোট গঠন নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ কিছু আলোচনা হবে৷ এছাড়া মোদী তথা বিজেপির বিরোধীতায় জোটের পরবর্তী রূপরেখা কী হবে সেই নিয়েও আলোচনা হতে পারে বলে জানা গিয়েছে৷

গত কয়েকসপ্তাহ ধরে বিজেপির বিরুদ্ধে বিরোধী দলগুলিকে এককাট্টা করার কাজে তৎপর হয়েছেন তেলেগু দেশম পার্টির সুপ্রিমো৷ নেতাদের বাড়ি বাড়ি ছুটে বেরিয়েছেন৷ গত ২৩ অক্টোবর থেকে ১ নভেম্বর অবধি তিনি দেখা করেন মায়াবতী, অখিলেশ যাদব, মুলায়ম সিং যাদব, রাহুল গান্ধী, অরবিন্দ কেজরিওয়াল, শরদ যাদব, ফারুক আবদুল্লা ও বামেদের সঙ্গে৷ আগামী ১৯ নভেম্বর পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করার কথা বাংলার নেত্রীর সঙ্গে দেখা করা প্রসঙ্গে চন্দ্রবাবু জানান, তিনি ‘দিদির’ সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ রেখে চলেছেন৷

এদিকে শনিবার তিনি দেখা করেন কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক অশোক গেহলটের সঙ্গে৷ প্রসঙ্গত, তেলুগু দেশম পার্টির সুপ্রিমো চন্দ্রবাবু গোড়া থেকেই কংগ্রেসকে সঙ্গে নিয়ে মোদী-বিরোধী জোট গড়তে আগ্রহী৷ শনিবার রাজস্থানের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের পর দু’জনে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন৷ সেখানে চন্দ্রবাবু জানান, প্রধান বিরোধী দলের সভাপতি হিসাবে রাহুল গান্ধীকে অনুরোধ করেছেন মোদী বিরোধী জোটকে পোক্ত করতে তিনি যেন সামনে থেকে নেতৃত্ব দেন৷ সেটা রাহুল মেনে নিয়েছেন৷

তার আগে শুক্রবার চেন্নাইতে গিয়ে ডিএমকে নেতা স্ট্যালিনের সঙ্গে দেখা করেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী৷ চন্দ্রবাবু জানান, সব দলকে একজোট করার কাজে তারা এগিয়ে এসেছেন৷ এক বা দুটি দলের মধ্যে হয়তো কোনও বিষয়ে মতপার্থক্য আছে৷ টিডিপির সঙ্গে কংগ্রেসের ৪০ বছরের বৈরিতা ছিল৷ কিন্তু এখন পরিস্থিতি আলাদা৷ এখন সবাইকে একজোট করার চেষ্টা চলছে৷ গণতন্ত্র রক্ষা করাটা জরুরি৷ তাই নিজেদের মধ্যে সব মতপার্থক্য ভুলে যাওয়া দরকার৷

শুক্রবার স্ট্যালিনের সঙ্গে দেখা করার পর সাংবাদিকদের এমনটাই জানান তিনি৷ চন্দ্রবাবুর দিকে বন্ধুত্বের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন স্ট্যালিন৷ তাঁর কথায়, ‘‘বিজেপিকে হারাতে সমস্ত আঞ্চলিক দলগুলিকেই একজোট হওয়া উচিত৷ দেশবিরোধী, সাম্প্রদায়িক বিজেপির শাসন শেষ হওয়া উচিত৷’’