রায়গঞ্জ: করোনা আক্রান্তের সঠিক হিসেব জেলা স্বাস্থ্য দফতর দিচ্ছে না, এই অভিযোগে এবার আরটিআই-এর সিদ্ধান্ত বিরোধীদের। উত্তর দিনাজপুর জেলায় এবার তথ্য জানার অধিকার আইনের সাহায্য নিতে চলেছে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি।

সরকারের উপরমহলের ‘নির্দেশ’ মেনেই জেলা স্বাস্থ্য দফতর করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া নিয়ে তথ্য গোপন করছে বলে অভিযোগ শাসক-বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির।

উত্তর দিনাজপুরেও ছড়াচ্ছে মারণ করোনার সংক্রমণ। জেলার কংগ্রেস, সিপিএম ও বিজেপি নেতৃত্বের অভিযোগ, জেলায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ে তথ্য গোপন করছে স্বাস্থ্য দফতর।

প্রকৃত জেলায় কতজন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বা করোনায় কতজনের মৃত্যু হয়েছে, সেব্যাপারে স্বাস্থ্য দফতর কিছু জানাচ্ছে না বলে অভিযেগা বিরোধীদের।

সেই কারণেই উত্তর দিনাজপুর জেলায় নোভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা জানতে এবার তথ্য জানার অধিকার আইনের সাহায্য নিচ্ছে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি।

কংগ্রেস ও সিপিএমের সঙ্গেই তথ্য জানার অধিকার আইনের সাহায্য নিয়ে জেলায় করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার প্রকৃত তথ্য জানতে চায় বিজেপিও। ইতিমধ্যেই বিরোধীদের তরফে সেই প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছে। এব্যাপারে আইন বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নেওয়া হচ্ছে।

এদিকে উত্তর দিনাজপুর জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, সোমবার গভীর রাতে মালদহ ও শিলিগুড়ি মেডিক্যাল থেকে করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট এসেছে জেলায়।

সেই রিপোর্ট অনুযায়ী মঙ্গলবার পর্যন্ত উত্তর দিনাজপুর জেলায় ৭ জন করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। জেলায় ওই ৭ করোনা আক্রান্তের বাড়ি রায়গঞ্জ ও ইসলামপুর মহকুমার বিভিন্ন ব্লকে।

রায়গঞ্জ মহকুমার এক করোনা আক্রান্ত বর্তমানে কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ইসলামপুরের করোনা আক্রান্ত ৬ জনকেও হাসপাতালে ভর্তি রেখে চিকিৎসা করা হচ্ছে। আক্রান্তদের পরিবারের সদস্যদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। তাঁদের সংস্পর্শে আসা প্রত্যেককে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হয়েছে।

প্রশ্ন অনেক: দ্বিতীয় পর্ব