স্টাফ রিপোর্টার , কলকাতা : উচ্চমাধ্যমিকের ফলাফল বেরিয়ে গিয়েছে। এবার কলেজে ভরতি প্রক্রিয়া। করোনার জন্য বলেই দেওয়া হয়েছে অনালাইনে হবে ভরতি প্রক্রিয়া। পাশাপাশি কলেজে দুর্নীতি এড়াতে আগেই অনলাইন ব্যবস্থা চালু করেছিল রাজ্য শিক্ষা দফতর। এবারে সেই সিদ্ধান্ত স্বাভাবিকভাবেই বহাল থাকছে। এবিভিপির দাবী, বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রিক সেন্ট্রালাইজড অনলাইন অ্যাডমিশন সিস্টেমের মাধ্যমে কলেজগুলোতে ভর্তি প্রক্রিয়ার ব্যবস্থা করতে হবে।

কিন্তু এর কারণ কী? এবিভিপি জানাচ্ছে , ‘বিগত ১৬জুলাই ২০২০ তারিখে পশ্চিমবঙ্গ উচ্চ শিক্ষা দফতরের ভরতি সংক্রান্ত যে নির্দেশিকা যাতে বিভিন্ন কলেজে আলাদা আলাদাভাবে অনলাইন ভর্তি প্রক্রিয়ার কথা বলা হয়েছে তাতে পুনরায় বছরের পর বছর ধরে চলে আসা রাজ্যের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে দুর্নীতির সুযোগকে আবারও সরকারি ছাড়পত্রের মাধ্যমে দেওয়া হয়েছে। বিগত বছর গুলিতে আমরা দেখেছি কোনও ছাত্র, ছাত্রী কোনও একটি নির্দিষ্ট কলেজে ভর্তি সংক্রান্ত অনিশ্চয়তার কারণে বাধ্য হয়ে বিভিন্ন কলেজে আলাদা আলাদাভাবে ভর্তির ফর্ম ফিলাপ করে থাকেন। ভিন্ন ভিন্ন কলেজে শুধুমাত্র ভর্তির ফর্ম ফিল আপ করতে গিয়েই তাদের প্রতিবার আলাদা আলাদাভাবে টাকাপয়সা জমা করতে হত। এই অব্যবস্থার ফলে কোনও একটি সাধারণ ছাত্র-ছাত্রী থেকে গরীব দুঃস্থ পরিবারের মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীর পরিবারকে অর্থনৈতিক ভাবে চরম সমস্যার সম্মুখীন হতে হত।’

এবিভিপি জানাচ্ছে পাশাপাশি, এই অব্যবস্থাপনার ফলে ফর্ম ফিলাপ পরবর্তী সময়েও সেই ছাত্র-ছাত্রীকে বহু সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। এমনও দেখা গিয়েছে, অনেক মেধাবী পড়ুয়া শুধুমাত্র কলেজের ভর্তির ফর্ম ফিল আপ করতে না পেরেই মাঝপথে তাদের পড়াশোনা ছেড়ে দিয়েছে। ঠিক একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি এই বছরও রাজ্য সরকার নির্দেশিকা জারির মধ্য দিয়ে কলেজে কলেজে আলাদা আলাদাভাবে অনলাইন ভর্তি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে করতে চলেছে।

তাই নির্দেশিকা নিয়ে বিদ্যার্থী পরিষদের দক্ষিণবঙ্গ প্রান্ত সম্পাদক শ্রী সুরঞ্জন সরকার জানিয়েছেন, “প্রতিবছরের মতো এবছরও আমরা স্পষ্ট দাবি জানাচ্ছি সমস্ত ভর্তি প্রক্রিয়া বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রিক সেন্ট্রালাইজড অনলাইন অ্যাডমিশন সিস্টেমের মাধ্যমে করতে হবে। এবং সেইসাথে কোভিড মহামারী পরিস্থিতিতে এই বছর সাধারণ ছাত্রছাত্রীদের পরিবারের অর্থনৈতিক অবস্থার কথা মাথায় রেখে অ্যাডমিশন ফি’স মুকুব ও প্রথম সেমিস্টারের ফি’সও মুকুব করতে হবে। এছাড়াও আগামীদিনে ভিন্ন ভিন্ন কলেজের বিভিন্ন দাবি বিদ্যার্থী পরিষদ গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সরকারের সামনে তুলে ধরতে থাকবে।”

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ