স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: বিএসএফের গুলিতে মৃত্যু হল এক পাচারকারীর৷ রবিবার ভোর রাতে ঘটনাটি ঘটে মালদহের কালিয়াচক থানা এলাকার ভারত বাংলাদেশ সীমান্তে৷ মৃতের নাম হৃদয় ঘোষ৷ সে মাদক কাফসিরাপ ফেনসিডিল নিয়ে সীমান্ত পার হচ্ছিল বলে জানা গিয়েছে৷

বিএসএফ সূত্রে খবর, এদিন ভোর রাতে বেশ কয়েকজন চোরাচালানকারী মালদহের ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী কাঁটাতার দিয়ে ফেনসিডিল পাচার করছিল। সেই সময় ২৪ নম্বর ব্যাটেলিয়নের প্রহরারত জওয়ানরা এই ঘটনা দেখতে পায়৷ সঙ্গে সঙ্গে জওয়ানরা ধাওয়া করে তাদের৷ পালটা চোরাচালানকারীরা বিএসএফ জওয়ানদের লক্ষ্য করে ইট পাটকেল ছুঁড়তে থাকে। সেই সময় চোরাচালানকারীদের আক্রমণে তিনজন বিএসএফ জওয়ান আহত হন৷

এরপর পালটা বিএসএফ ওই চোরাচালানকারীদের লক্ষ্য করে গুলি চালায়৷ এতে এক পাচারকারী গুলিবিদ্ধ হয়৷ নাম হৃদয় ঘোষ৷ তার বুকে গুলি লাগে৷ ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তার৷ তবে হৃদয় ঘোষের সঙ্গে থাকা বাকিরা সীমান্ত থেকে পালিয়ে যায় বলে খবর। সীমান্ত এলাকা থেকে উদ্ধার হয় ১৭৫ বোতল মাদক কাফ সিরাপ ফেনসিডিল৷ যদিও পলাতক বাকি পাচারকারীদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে বিএসএফ ও পুলিশ। ইতিমধ্যেই গোটা ঘটনার তদন্তে নেমেছে তারা৷

এই প্রসঙ্গে ডিআইজি অমর কুমার এক্কা বলেন, ‘‘শনিবার রাতে কয়েকজন যুবককে সীমান্তে দেখতে পায় জওয়ানরা৷ কিন্তু তাদের সীমান্তের দিকে এগোতে বারণ করলে তারা পালটা জওয়ানদের দিকে এগিয়ে আসতে থাকে৷ এই দলে প্রায় ৪০ থেকে ৫০ জন যুবক ছিল৷ জওয়ানদের আক্রমণ করে তারা৷ সেই আক্রমণের জেরেই আমাদের এক জওয়ান জখম হন৷

এমনকি বাকি জওয়ানদের হাতিয়ার ছিনিয়ে নেওয়ারও চেষ্টা করে ওই যুবকদের কেউ কেউ৷ এর পরিপ্রেক্ষিতেই জওয়ানরা নিজেদের আত্মরক্ষার জন্য এক রাউন্ড গুলি চালায়৷ আর তাতেই মৃত্যু হয় এক পাচারকারীর৷’’ পাশাপাশি তিনি জানান, জখম জওয়ানের চিকিৎসা ইতিমধ্যেই শুরু করা হয়েছে৷