বেঙ্গালুরু: গত কয়েকদিন ধরে নতুন করে নাটক শুরু হয়েছে কর্ণাটকের রাজনীতিতে। নিখোঁজ কংগ্রেস বিধায়কদের নিয়ে শুরু হয়েছিল জোর জল্পনা। তবে বিজেপির বিরুদ্ধে ‘অপারেশন লোটাস’ শুরু করার অভিযোগও উঠেছিল। কিন্তু শেষমেস নাকি বিধায়করা ফিরছেন প্যাভিলিয়নেই। বিজেপির অপারেশন ব্যর্থ বলেই দাবি করতে শুরু করেছে কংগ্রেস।

গত কয়েকদিন ধরেই খোঁজ নেই কয়েকজন কংগ্রেস বিধায়কের। এর মধ্যে আবার দুই নির্দল বিধায়কের সমর্থন তুলে নেওয়ার ঘটনায় জল্পনা আরও বাড়ে। যদিও মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামী বিষয়টা নিয়ে আত্মবিশ্বাসী ছিলেন। তবে আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছিল।

কর্ণাটকের কংগ্রেসের জেনারেল সেক্রেটারি জানিয়েছেন, প্রত্যেক বিধায়কের সঙ্গেই আলাদাভাবে কথা হয়েছে তাঁদের। তাঁরা সবাই কংগ্রেসেই আছেন। একজন ইতিমধ্যেই বেঙ্গালুরু পৌঁছেছেন। অন্য দু’জনও পথেই আছেন বলে জানিয়েছেন তিনি। বিজেপি তাদের ভুলপথে চালিত করেছিল বলে অভিযোগ করেছে কংগ্রেস।

ভিমা নায়েক নামে এক বিধায়ক ফিরেছেন ইতিমধ্যেই। আরও দুই বিধায়ক বি নাগেন্দ্র ও বিএন গনেশ বেঙ্গালুরু ফিরছেন বলে জানা গিয়েছে। ভীমা নায়েক জানিয়েছেন, তাঁর ফোন নাকি সুইচড অফ ছিল, তাই তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করা যাচ্ছিল না। কোনও বিজেপি বিধায়কের সঙ্গেও যোগাযোগ হয়নি বলে জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে, বুধবার কর্ণাটক রাজ্য বিজেপির দফতরের সামনে বিক্ষোভ দেখায় কংগ্রেস কর্মী-সমর্থকেরা।

এদিনই বিধায়কদের ফেরাতে কড়া পদক্ষেপ নেয় কর্ণাটক কংগ্রেস। শুক্রবার সব বিধায়কদের সিএলপি বৈঠকে ডাকা হয়েছে। ওই বৈঠকে সকল বিধায়কদের থাকা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। বৈঠকে অনুপস্থিত থাকলে সেই বিধায়কদের উপরে দলত্যাগ বিরোধী আইন প্রয়োগ করা হবে এবং সেই সঙ্গে দলের প্রাথমিক সদস্যপদ বাতিল করা হবে বলেও জানানো হয়েছে কংগ্রেসের তরফে।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।