হাওড়া: ফের হাওড়া থেকে উদ্ধার হল মাদক দ্রব্য৷ ঘটনায় গ্রেফতার করা হয় এক ব্যক্তিকে৷ ধৃত ব্যক্তির নাম রবীন (৩৪)৷ তার কাছ থেকে হাজার টাকার মাদক ও নগদ টাকা উদ্ধার করে স্থানীয়রা৷

মঙ্গলবার মাদক বিক্রি করতে এসে স্থানীয়দের হাতেনাতে ধরা পড়ে যায় ওই ব্যক্তি৷ হাওড়ার লিলুয়ার কোনা হাইরোড এলাকায় কিভাবে এসে পৌঁছচ্ছে এই মাদক তা নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই এলাকাবাসীদের মধ্যে উৎকণ্ঠা বাড়ছিল। স্থানীয় বাসিন্দারা এলাকায় মাদকের প্রবেশ আটকাতে শুরু করেন নজরদারি। উদ্ধার হয় বেশ কয়েক হাজার টাকার মাদক ও নগদ টাকা। ধৃত যুবককে বেধড়ক মারধর করে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

এদিন দুপুরে হাওড়ার কোনা হাই রোড এলাকায় নিষিদ্ধ মাদক বিক্রি করতে এসে ধরা পড়ে রামকৃষ্ণ পল্লির বাসিন্দা রবীন (৩৪) নামের এক যুবক। অভিযোগ, এলাকার তরুণদের মধ্যে বিগত কয়েক বছর ধরেই মাদকাসক্তি বাড়ছিল। পুলিশের নজরদারি পেরিয়ে কিভাবে এই নিষিদ্ধ মাদক বিক্রি হচ্ছে সেটা বুঝতে পারছিলেন না এলাকাবাসীরা। নিজেদের পরিবারের সদস্যদের এই মাদকের হাত থেকে বাঁচাতে তাই নিজেরাই শুরু করেছিলে নজরদারি।

স্থানীয় বাসিন্দা বাপি মণ্ডল বলেন, কিভাবে এলাকার তরুণরা এই মাদকের নাগাল পাচ্ছে তার সন্ধান করতেই গত কয়েকমাস ধরেই নজরদারি শুরু করি আমরা। এদিন দুপুরে ফল মিলেছে হাতেনাতে। এলাকায় মাদক সরবারহ করতে এসে হাতেনাতে ধরা পড়ে যায় মাদক পাচারকারী ওই যুবক।

আরেক স্থানীয় বাসিন্দা তপন সাউ বলেন, দীর্ঘদিন ধরেই এদের জন্য এলাকার পরিবেশ নষ্ট হচ্ছিল। নেশা করার জন্যে এলাকায় বাড়ছিল চুরির সংখ্যা। পার্কিং এ রাখা গাড়ির ব্যাটারিও চুরি করত এরা। এদিকে, এই প্রসঙ্গে ধৃত মাদক সরবরাহকারী যুবক বলেন, হাওড়া থেকে কিনে নিয়ে আসি। এখানে কয়েকজন মিলে একসঙ্গে বসে নেশা করি। নতুন লোক কাউকে বিক্রি করি না। সকলের চোখের আড়ালে লুকিয়ে জঙ্গলে বসে নেশা করি যাতে ধরা পড়ে না যাই।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ১ গ্রাম মাদক ৩ হাজার টাকা দিয়ে কিনে এনে ছোটো ছোটো পুরিয়া করত৷ সেই পুরিয়া প্রতি ২০০ থেকে ২৫০ টাকায় বিক্রি করত ওই যুবক। কিভাবে দীর্ঘদিন ধরে পুলিশের নজর এড়িয়ে এই ব্যবসা চালিয়ে গেল ওই যুবক তা নিয়ে ধন্ধে পড়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

দীর্ঘ প্রায় আট বছর ধরেই মাদক পাচারের কাজ করছিল ওই যুবক। এলাকার বাসিন্দাদের দাবি কারোর কাছে মাদক কেনার পয়সা না থাকলে তাকে দিয়ে রাতে এলাকায় পার্কিং করা চারচাকা গাড়ির ব্যাটারি চুরি করিয়ে সেই ব্যাটারি বিক্রি করে মাদকের দাম উসুল করত ধৃত যুবক।