লখনউ: কথায় বলে রাজনীতি সম্ভাবনার শিল্প৷ এই প্রবাদ সত্যি করেই আজ মায়া-মুলায়মকে দেখা যাবে একমঞ্চে৷ সাপে নেউলে সম্পর্ক ভুলে সাইকেলের সওয়ারি মুলায়মের হয়ে ভোট চাইবেন বিএসপি সুপ্রিমো মায়াবতী৷

আরও পড়ুন: তালিকা থেকে ভোটারদের নাম মুছে ফেলার অভিযোগে কমিশনে গেল বিজেপি

দলের নেতৃত্ব আপাতত বড় ছেলে অখিলেশের হাতে৷ সংসদে এবারের বিজেপি সরকারের মেয়াদকালের শেষ অধিবেশনে নেতাজী মোদীকেই ফের প্রধানমন্ত্রী দেখতে চেয়েছেন৷ বিড়ম্বনায় পড়তে হয় উত্তরপ্রদেশের ‘বুয়া-বাবুয়া’ জোটকে৷ তবে মুলায়ম সিংয়ের রাজনৈতিক অভিজ্ঞতাকে মাথায় রেখে অখিলেশ এবারও মইনপুরী থেকে প্রার্থী করেছেন নেতাজীকে৷ ওই কেন্দ্রের খ্রীষ্টান কলেজ মাঠেই এদিন দুপুর সাড়ে বারোটায় একদা ঘোর শত্রু মুলায়মের হয়ে প্রচার করবেন মায়াবতী৷

২৪ বছর পর ফের একসঙ্গে মায়া মুলায়ম৷ জোট বার্তা দিতে ২৫ এপ্রিল কনৌজে যৌথ প্রচার করার কথা অখিলেশ ও মায়ার৷ কনৌজ থেকে এবারও সমাজবাদী পার্টির প্রার্থী দলের প্রধান অখিলেশ সিং যাদবের স্ত্রী ডিম্পল যাদব৷
১৯৯৫-এর ২ জুন৷ গেস্ট হাউস কাণ্ডের পর মুখ দেখা-দেখি বন্ধ ছিল মায়াবতী ও মুলায়ম সিং যাদবের৷

আরও পড়ুন:  তাঁর ওপর হামলা, প্রচারে বাধায় উৎসাহ জুগিয়েছে পুলিশ: বিস্ফোরক সৌমিত্র

লখনউয়ের এক গেস্ট হাউসে সপার সঙ্গ ত্যাগ করে মায়াবতী বিজেপির সঙ্গে জোট গড়েন৷ পরদিন তাদের উত্তরপ্রদেশে সরকার গঠনের কথা ছিল৷ দেশের সবচেয়ে রাজ্যের ক্ষমতায় তখন মুলায়ম সিং যাদব৷ রাজ্যপাট নিশ্চিৎ হাতছাডা় হতে দেখে ক্ষোভে ফেটে পড়েন নেতাজী৷ গেস্ট হাউস ঘিরে ফেলে তাঁর বাহিনী৷ আতান্তরে পড়েন মায়াবতী৷ কোন মতে বিজেপি বিধায়র দত্ত দ্বিবেদীর মাধ্যমে বাইরে বেরিয়ে আসতে পারেন তিনি৷

আরও পড়ুন: আরএসএস-এর সদর দফতরে মোহন ভাগবতের সঙ্গে রতন টাটার বৈঠক

গেরুয়া দলের সমর্থনে ৩ জুন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী হন মায়াবতী৷ ক্ষমতায় এসেই শত্রু মুলায়মের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা করেন তিনি৷ এই ঘটনাই সে রাজ্যের ইতিহাসে বিখ্যাত গেস্ট হাউস কাণ্ড বলে পরিচিত৷ সেই ঘটনার পর থেকে দীর্ঘ ২৪ বছর যুযুধান এই দুই নেতা নেত্রীর মুখ দেখা-দেখি বন্ধ৷ কিন্তু রাজনীতিতে কোনও কিছুই চিরস্থায়ী নয়৷

সময়ের প্রয়োজনে বিজডেপিকে হারাতে বর্তমানে অখিলেশ ও মায়া জোটসঙ্গী৷ বিএসপি নেত্রীর কথায়, গেস্ট হাউস ঘটনার সময় অখিলেশ রাজনীতিতে আসেননি৷ ফলে জোটের সময় সেকথা মনে না করাই ভালো৷ আর আমি যাবো সপা প্রার্থীর হয়ে প্রচার করতে৷ ঘটনাচক্রে তিনি মুলায়ম সিং যাদব৷ মায়ার কথায়, ব্যক্তিস্বার্থের থেকেও বড় দেশের স্বার্থে মোদী সরকারের বিদায়৷ তাই সপা-বসপা জোট বাঁধতে হয়েছে৷

আরও পড়ুন: মোদীর কপ্টারে তল্লাশিতে আইএএস অফিসারকে বরখাস্ত নিয়ে প্রশ্ন

একদা একমাত্র শত্রুর হয়ে আজ প্রচারে ভোট ভিক্ষা করবেন মায়াবতী৷ প্রচারে কী বলবেন মায়া? কৌতুলহী নজরে মইনপুরী৷