ছবি সৌজন্যে : মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ফেসবুক পেজ

কলকাতা: পিতৃপক্ষে পুজোর উদ্বোধন! মহালয়ার আগে শ্রীভূমি স্পোর্টিং ক্লাবের পুজোর সূচনা ঘিরে তৈরি হয়েছিল বিতর্ক৷ শুক্রবার বিকেলে স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে সেই বিতর্কে জল ঢাললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

ছবি সৌজন্যে : মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ফেসবুক পেজ

ভিআইপি রোড লাগোয়া লেক টাউনের ওই পুজোর মূল উদ্যোক্তা বিধায়ক সুজিত বসু৷ এদিন পুজোর উদ্বোধনের পর মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দিলেন সুজিতের ‘বায়না’ মেটাতেই তিনি মহালয়ার আগে পুজোর উদ্বোধন করলেন৷

আরও পড়ুন: শহরে বাড়াতে হবে মহিলা নিরাপত্তা, দাবি যুব কংগ্রেসের

কিন্তু মহালয়াতেই তো দেবীপক্ষের সূচনা৷ তার আগে কীভাবে পুজোর উদ্বোধন হয়, এই প্রশ্ন উঠছিল বারবার৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন কার্যত সেই প্রশ্নেরই উত্তর দিয়েছেন শ্রীভূমির মঞ্চ থেকে৷

বলেছেন, ‘‘আমি প্রদীপ জ্বালাবো না৷ আমি কতগুলো মঙ্গালাচার মেনে চলি৷ আমার ধর্ম, আমার বিশ্বাস৷ দেবীপক্ষ হওয়ার পরই প্রদীপ জ্বালাতে হবে৷ দেবীপক্ষ হওয়ার পরই আমি চণ্ডীপাঠ করব৷’’

ছবি সৌজন্যে : মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ফেসবুক পেজ

মুখ্যমন্ত্রী কলকাতার বহু পুজোর উদ্বোধন করেন৷ সেই কারণেই মহালয়ার আগে শ্রীভূমির পুজোর উদ্বোধনের ব্যবস্থা করতে তিনি সুজিত বসুকে বলেছিলেন বলেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন দাবি করেন৷

আরও পড়ুন: কলকাতার পুজোয় ‘প্রযোজক’ ট্রাম্প

কেন তিনি এমন বলেছিলেন, সেই ব্যাখ্যাও এদিন দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ তাঁর মতে, দুর্গাপুজো বাঙালির জাতীয় উৎসব৷ এটা একাধারে আনন্দোৎসব, তো অন্যদিকে মিলনোৎসব৷ সেই উৎসব যত আগে শুরু হয় তত ভালো৷

ছবি সৌজন্যে : মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ফেসবুক পেজ

এদিন ওই পুজোর উদ্বোধনে গিয়ে শ্রীভূমির প্রশংসা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ একই সঙ্গে দরাজ হয়ে সুজিত বসুর পারফরম্যান্সের সার্টিফিকেট দিয়েছেন৷ বলেছেন, ‘‘সুজিত নিজের এলাকাকে খুব সুন্দরভাবে সাজিয়ে রাখে৷’’

আরও পড়ুন: মৃত্যুবার্ষিকীতে ফিরে দেখা জোবসের হাত ধরে আসা টেকনোলজির সাতকাহন

পাশাপাশি তিনি সাধারণ মানুষের কাছেও এলাকাকে পরিষ্কার রাখার আবেদন করেছেন৷ যেভাবে সবাই নিজের ঘর পরিষ্কার রাখেন, সেভাবেই বাংলাকে পরিষ্কার রাখার আবেদন করেছেন তিনি৷ বলেছেন, ‘‘মনটা পরিষ্কার তো সব পরিষ্কার৷’’

আরও পড়ুন: বধূকে পুড়িয়ে খুনে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড স্বামী ও ভাসুরের