দেখতে দেখতে ১০০ বছর পার করল বিশ্বের সবথেকে বড় বিমান নির্মাণকারী সংস্থা বোয়িং। ১৯১৬ থেকে শুরু করে ২০১৬। কাঠের বিমান তৈরি দিয়ে শুরু হয়েছিল পথ চলা। আর এখন স্টিল। ইতিহাসই বটে। বোয়িং-এর এই পথচলার কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ও ছবি:

১. ১৯১৬ তে তৈরি হয় প্রথম বোয়িং বিমান। কাঠ দিয়ে তৈরি করা হয় এই বিমান। পুরোটাই তৈরি হয়েছিল হাতে।B-1

২. ১৯১৬-র ১৫ জুন প্রথম উড়েছিল বোয়িং-এর তৈরি বিমান। যার ডানা ছিল ১৬ মিটার চওড়া। গি ছিল ১২১ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা।
B-2
৩. বোয়িং প্রথম ধাতব বিমান তৈরি করল ১৯৩০-এ। সেইসময়ে এটাই ছিল সবথেকে আধুনিক বিমান।
B-3
৪. ১৯৪৫-এ ইতিহাসের পাতায় আরও একবার নাম লেখাল বোয়িং। এদের তৈরি B-29 বোম্বার থেকেই বোমা ফেলা হল জাপানের হিরোশিমা, নাগাসাকিতে।
B-4
৫. তৈরি হল B-47 স্ট্র্যাটোজেট। যা পুরোপুরি ভাবে পরমাণু বোমা ফেলার জন্য তৈরি করা হয়েছিল। কিন্তু তা কোনোদিন ব্যবহার করা হয়নি। সেই ডিজাইনেই তৈরি হয় আধুনিক জেট বিমান।
B-5
৬. ১৯৫৪ তে উড়ল বোয়িং-707. যা ছিল বিশ্বের সর্বপ্রথম সফল অসামরিক বিমান। Air Force One হিসেবে প্রথম ব্যবহার করা হয়েছিল এই বিমান।B-6

৭. ১৯২৩-এ গোটা বিশ্ব পরিক্রমার পর কলকাতায় পৌঁছেছিল বোয়িং বিমান।
B-7
৮. ১৯৬৭ তে তৈরি হয় বোয়িং-এর ফ্যাক্টরি। যেখানে বোয়িং- 747 তৈরি করা হয়। আর সেই কারখানা আকারে বিশ্বের সবথেকে বড় বিল্ডিং।
B-8
৯. ১৯৭০-এ প্রথম ওড়ে বোয়িং-747. সেটা যে সফলভাবে উড়বে তা ধারনা ছিল না সংস্থার।

B-9

১০. ২০১২-র সেপ্টেম্বরে বোয়িং তৈরি করল এয়ার ইন্ডিয়ার প্রথম 787 Dreamliner.

b-10