শ্রীনগর: একদিন পরেই ধর্মপ্রাণ মুসলিম সম্প্রদায়ের বড় উৎসব ঈদ৷ আর্টকেল ৩৭০ এবং ৩৫এ বাতিলের পর জম্মু কাশ্মীরে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়৷ তারপর তা সাময়িকভাবে তুলে নেওয়া হয়৷ রবিবার সকালে ফের ১৪৪ ধারা জারি করা হয় শ্রীনগরে৷ সেই ১৪৪ ধারা আবার সরিয়ে নেওয়া হল বলে জানান, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ডঃ জিতেন্দ্র সিং৷

সূত্রের খবর, রবিবার ফের ১৪৪ ধারা জারি করা হয়৷ সেনা ও পুলিশ গাড়িতে করে শ্রীনগরে তা ঘোষণা করে৷ সেখানে সাধারন মানুষকে বাড়ি ঢুকে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়৷ দোকান বন্ধ করে দোকানদারদেরও চলে যেতে বলা হয়৷ শুধু তাই নয়, সাধারন মানুষকে জরুরি জিনিস কিনে রাখারও পরামর্শ দেওয়া হয়েছে৷ তবে পরে অবস্থার পরিবর্তন হয়৷

আরও পড়ুন : ৩৭০ ধারা নয়, পাক শেলিং থেকে বাঁচতে বাঙ্কার চায় কাশ্মীর 

ঈদের আগে কাশ্মীরিদের স্বস্তি দিতে তুলে নেওয়া হয় ১৪৪ ধারা৷ এই খবর প্রকাশিত হতেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ডঃ জিতেন্দ্র সিং সংবাদ সংস্থা এএনআই কে জানান, কাশ্মীরের সাধারণ মানুষ আর্টকেল ৩৭০ বাতিলকরণে আনন্দিত। যেখানেই ১৪৪ ধারা চাপানো হয়েছিল, তা সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে।

রবিবারের আগেও জম্মু কাশ্মীর থেকে ১৪৪ ধারা সাময়িক ভাবে তুলে নেওয়া হয়৷ খুলে দেওয়া হয় স্কুল-কলেজ, দোকান ও অন্যান্য পরিষেবা৷ এমনকি মোবাইল, টেলিফোন, ইন্টারনেট এর যোগাযোগের মাধ্যমের উপর থেকে সাময়িক ভাবে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়৷ ফের রবিবার ১৪৪ ধারা জারিতে জম্মু ও কাশ্মীরের মানুষের কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়ে৷

আরও পড়ুন : গরু-শূয়োরের মাংস ডেলিভারি নয়, জোমাটো কর্মীদের ফরমানে সমর্থন তৃণমূলের

আর্টিকেল ৩৭০ ও ৩৫এ বাতিল এবং কাশ্মীর পুনর্গঠন বিল পাশ হয়ে যাওয়ার ঠিক দু’দিন পরে গত বৃহস্পতিবার রাত ৮টা নাগাদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেন৷ সেখানে উপত্যকায় ঈদ নিয়ে খুশির বার্তা দিয়েছিলেন তিনি৷ সেই সঙ্গে তিনি সেদিন ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেছিলেন, ‘জম্মু-কাশ্মীর এবং লাদাখবাসীর চিন্তা সমগ্র দেশের চিন্তা। জম্মু-কাশ্মীরে ঈদ পালনে যাতে কোনও সমস্যা না হয় সেই বিষয়টি সরকার নিশ্চিত করেছে৷’