লখনউ : প্রকাশ্যে খুন করা হল সমাজবাদী পার্টি নেতা ও তাঁর ছেলেকে। রীতিমত ভিডিও করা হল সেই দৃশ্য। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরালও হয়ে গেল খুনের ভিডিও। এমনই ঘটনা ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের সম্বলে। রাজধানী লখনউ থেকে যার দূরত্ব ৩৭৯ কিমি এবং দিল্লি থেকে ১৮৭ কিমি দূরে।

সম্বলের একটি গ্রামে খুব কাছ থেকে গুলি করা হয় ওই দুইজনকে। রাস্তা তৈরি নিয়ে গন্ডগোলের জেরে খুন করা হয়েছে বলে স্থানীয় বাসিন্দাদের ধারণা। এমএনআরইজিএ প্রকল্পের আওতায় এই রাস্তা তৈরির কাজ চলছিল। তারই মাঝে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে বিবাদ শুরু হয়। রাস্তা তৈরি করার দায়িত্বে ছিলেন সমাজবাদী পার্টি নেতা ছোটে লাল দিবাকর ও তাঁর ছেলে সুনীল।

রাস্তা তৈরি করতে গেলে একটি ক্ষেতের ওপর দিয়ে তৈরি করতে হত। এই নিয়েই শুরু হয় বিবাদ। ওই গ্রামের আরও দুজন বিবাদে জড়িয়ে পড়েন। খুব কাছ থেকে গুলি করা হয় সমাজবাদী পার্টি নেতাকে। ওই গ্রামেরই বাসিন্দা এই গুলি করে বলে খবর। আততায়ীকে চিহ্নিত করেছে পুলিশ। তার নাম সাভিন্দর বলে জানা গিয়েছে।

যে ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে, সেটি আড়াই মিনিটের। দেখা যাচ্ছে সাদা শার্ট পরা এক ব্যক্তি ও গোলাপি শার্ট পরা অপর এক ব্যক্তি রাইফেল নিয়ে ওই নেতার সঙ্গে বিবাদে রত। এদের মধ্যেই একজন গুলি চালানোর নির্দেশ দেয়। সঙ্গে সঙ্গে গুলি চলে। তারপরের ছবি ভিডিওতে স্পষ্ট নয়। একজনের আর্তনাদের শব্দ পাওয়া যায়। পরে দেখা যায় ওই নেতা রাস্তার ওপরে লুটিয়ে পড়ে রয়েছেন।

দিবাকরের স্ত্রী সম্বলের শামসই গ্রামের প্রধান। ঘটনাস্থলে দিবাকর ও তাঁর ছেলের মৃত্যু হয় বলে পুলিশ সূত্রে খবর। এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি। তবে তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। ভিডিও দেখেই খুনিদের চিহ্নিত করা হবে বলে জানা গিয়েছে। বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.