শ্রীনগর: সন্ত্রাসবাদের জন্য জম্মু ও কাশ্মীরের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মেহেবুবা মুফতিকে দুষলেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা৷ স্থানীয় যুবকরা যে সন্ত্রাসবাদীদের দলে নাম লেখাচ্ছে, তার জন্য মুখ্যমন্ত্রীর দিকে সরাসরি আঙুল তুললেন তিনি৷

সেই সঙ্গে তাঁর সময়কালে হিজবুল মুজহিদ্দিনের বুরহান ওয়ানিকে ২ বছর আগে ওমর আবদুল্লা এও বলেন, ১২ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে৷ এর মধ্যে ১১ জন স্থানীয় যুবক৷ বাকি ১ জনকে এখনও শনাক্ত করা যায়নি৷ দিল্লিকে অ্যালার্ম দেওয়ার জন্য ক্ষমতায় কি কেউ নেই? প্রশ্ন তুলেছেন তিনি৷

কাশ্মীরের তিনটি পৃথক জায়গায় এনকাউন্টারে ১৩ জঙ্গিকে নিকেশ করেছে সেনা। আর এই অভিযানে শহিদ হয়েছে তিন জওয়ান। শহিদ জওয়ানরা হলেন সেপাই হেতরাম, গ্রেনেডিয়ার নিলেশ সিংহ এবং গ্রেনেডিয়ার অরনিন্দর কুমার।

দক্ষিণ কাশ্মীরের সোপিয়ান ও অনন্তনাগ সহ তিনটি পৃথক এনকাউন্টারে ২ শীর্ষ কমান্ডার সহ ১৩ জঙ্গিকে খতম করেছে নিরাপত্তাবাহিনী। জীবিত আটক করা হয়েছে এক জঙ্গিকে। এই এনকাউন্টারে ৩ জওয়ানও মারা গিয়েছেন। গুলির লড়াইয়ের মাঝে পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন ৪ জন নিরীহ নাগরিক।

রাজ্য পুলিশের এক শীর্ষ আধিকারিক জানান, শনিবার রাতে গোপন সূত্রে বাহিনীর কাছে খবর আসে দক্ষিণ কাশ্মীরের তিন জায়গায় একসঙ্গে প্রচুর জঙ্গি জমায়েত হয়েছে গোপন বৈঠকের জন্য। প্রথমে অনন্তনাগের দিয়ালগমে এক জঙ্গিকে আত্মসমর্পণের চেষ্টা করায় পুলিশ। অবশেষে রাজি না হওয়ায়, নিরাপত্তাবাহিনীর গুলিতে মৃত্যু হয়েছে তার। আরেক জঙ্গিকে জীবন্তই ধরে বাহিনী।

অন্যদিকে, সোপিয়ানের দ্রাগাডে নিরাপত্তাবাহিনীর সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে খতম হয়েছে আরও ১০ জঙ্গি। এলাকায় তল্লাশি চালানোর সময় বাহিনী লক্ষ্য করে গুলি চালাতে শুরু করে জঙ্গিরা। জবাব দেয় বাহিনী। তাতেই ৭ জঙ্গি খতম হয়। জঙ্গিদের মধ্যে একজন লস্কর-ই-তইবা কম্যান্ডার, অপরজন হিজবুল মুজাহিদিন কম্যান্ডার।

তৃতীয় এনকাউন্টার হয় শোপিয়ানের কাচদুরু এলাকায়। সেখানে জঙ্গির গুলিতে প্রাণ হারান ৩ জওয়ান। কাশ্মীরের তরুণ লেফটেন্যান্ট উমর ফৈয়াজের হত্যার বদলাও এদিন নিয়েছে সেনাবাহিনী। যে ১২জন জঙ্গিকে মেরেছে সেনাবাহিনী, তার মধ্যে তরুণ সেনা অফিসার উমর ফৈয়াজের হত্যাকারীরাও রয়েছে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ