ভোপাল: কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী চেয়েছিলেন পদ থেকে সরে যাবেন তিনি৷ তবে কংগ্রেসের শীর্ষ নেতারা রাজি হননি৷ কংগ্রেস সভাপতি এও বলেছিলেন কোনও দলিত বা নেহেরু-গান্ধী পরিবারের বাইরে থেকে কেউ কংগ্রেসের হাল ধরুক৷ তাতেও নারাজ ছিল কংগ্রেস কোর কমিটি৷

শুক্রবার রাহুল গান্ধীর সেই বার্তাকে কাজে লাগিয়ে কংগ্রেস সভাপতি হতে ইচ্ছাপ্রকাশ করলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও অলিম্পিয়ান আসলাম শের খান৷ এই ইস্যুতে তিনি রাহুল গান্ধীকে চিঠিও পাঠিয়েছেন বলে খবর৷ সেই চিঠিতে কংগ্রেস সভাপতি পদে তাঁর বসার ইচ্ছা রয়েছে বলে জানিয়েছেন আসলাম৷

আরও পড়ুন: অযোধ্যায় গিয়ে রাম মূর্তি উন্মোচন করলেন যোগী আদিত্যনাথ

সংবাদ সংস্থা এএনআইকে দেওয়া সাক্ষাতকারে আসলাম বলেন রাহুলকে চিঠি দেওয়া হয়েছে৷ যদি রাহুল এই পদ ধরে রাখতে চান, তাহলে কিছু বলার নেই৷ কিন্তু যদি পদ ছাড়তে চান তাহলে সেই পদে আমি বসতে রাজী৷ তবে দুবছরের জন্য৷

কেন এই ইচ্ছা? প্রশ্নের উত্তরে আসলাম জানান, রাহুল নিজেই বলেছিলেন কংগ্রেস সভাপতির পদ ছাড়তে চান, নেহেরু-গান্ধী পরিবারের বাইরের কাউকে এই পদ দিতে চেয়েছিলেন৷ তাই আবেদন করেছি৷ উল্লেখ্য রাহুলের পদত্যাগের ইচ্ছা প্রকাশের পরে আসলাম খানই প্রথম নেতা, যিনি কংগ্রেস সভাপতির পদে বসার ইচ্ছা প্রকাশ করলেন৷ কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে সর্বসম্মতি ক্রমে রাহুলের পদত্যাগপত্র বাতিল করা হয়৷ কিন্তু আসলাম রাহুলের সিদ্ধান্তের স্বপক্ষে রায় দেন৷

আসলাম নিজের এই সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে জানান, নিজের স্বার্থের জন্য নয়, কংগ্রেসের সাংগঠনিক উন্নয়নের কাজে গতি আনতেই তিনি কংগ্রেস সভাপতি হতে চাইছেন৷ দলের খোল নলচে বদলে ফেলে পার্টির উন্নতি ঘটানোই তাঁর লক্ষ্য বলে জানান এই নেতা৷

আরও পড়ুন : আলোচনা শুরুর আর্জি জানিয়ে বিদেশমন্ত্রী জয়শঙ্করকে চিঠি পাকিস্তানের

তবে লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের ভরাডুবির জন্য রাহুল গান্ধীকে দায়ী করতে রাজি নন আসলাম৷ তাঁর মতে গোটা দেশ নরেন্দ্র মোদীর পক্ষে রায় দিয়েছে, কংগ্রেসের বিপক্ষে নয়৷ মানুষের সঙ্গে সংযোগ রক্ষা করতে ব্যর্থ হয়েছে কংগ্রেস৷ এর দায় দলের প্রতিটি নেতার৷ দল একটা কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করেন তিনি৷ সেই লড়াইয়ে সবাইকে সামিল হওয়ার আহ্বান জানান আসলাম৷

এর আগে, কংগ্রেসের ঘনিষ্ঠ সূত্র জানায়, শীর্ষ কংগ্রেস নেতাদের নিজের বিকল্প খোঁজার ভার দিতে চাইছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী৷ তিনি নাকি বলেছেন আমার বিকল্প খুঁজুন৷ কংগ্রেস নেতা আহমেদ প্যাটেল ও কেসি ভেনুগোপালের সাথে বৈঠক করেন রাহুল৷ সেখানে দলের নতুন সভাপতি খোঁজার পরামর্শ দেন তিনি৷ কারণ এই বিষয়ে তিনি সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন, যে সভাপতির পদ থেকে সরছেন তিনি৷ তাঁর এই সিদ্ধান্তের বদল হবে না বলেই কংগ্রেস সূত্র জানিয়েছিল৷