নিজের একটি স্বপ্নের বাড়ির আশা রাখে প্রত্যেকেই৷ এবং সেই স্বপ্নকে সত্যি করার জন্য অনেকেই নিজের সারাটা জীবন উৎসর্গ করে৷ ঠিক যেমন চিনের জিংপিংয়ের জিংজি গ্রামের এই মহিলা করেছেন৷ তাঁর স্বপ্ন ছিল নিজের একটি চিনা মাটির বাড়ি তৈরি করা৷ সারা জীবন সম্ভবপর না হলেও জীবনের শেষ প্রান্তে এসে ৮৬ বছর বয়সে সেই স্বপ্ন সত্যি করেছেন তিনি৷ ছ’মিলিয়ন ইয়ুন খরচ করে তৈরি করেছেন নিজের চিনা মাটির প্রাসাদ৷

porcelin-1

জিংপিংয়ের জিংজি গ্রামের ইইউ নামের ওই মহিলা জানিয়েছেন, তাঁর প্রাসাদের তিনটি ভাগ রয়েছে যার প্রতিটি ৪০০ বর্গফুটের৷ প্রথম ভাগে রয়েছে নীল ও সাদা সেরামিকের সংমিশ্রণ, দ্বিতীয় ভাগে রয়েছে লাল চিনা মাটি ও তৃতীয় ভাগে আছে সেরামিক ও চিনা মাটির সংমিশ্রণ৷

porcelin-2

জানা গিয়েছে, যখন তাঁর বয়স ১২ বছর ছিল তখন একটি সেরামিক কারখানায় কাজ করত ইইউ৷ ফলে সেখানেই তিনি শিখেছিলেন কেমন ভাবে চিনা মাটির আর্ট বানানো যায়৷ তিনি জানিয়েছেন এখনও পর্যন্ত প্রায় ষাট হাজার চিনা মাটির সরঞ্জম একত্রিত করেছেন৷ ইইউয়েক কাছ থেকে তাঁর এই চিনা মাটির প্রাসাদ তৈরির কারণ জানতে চাইলে তিনি জানিয়েছেন যে, এক সময়ে তিনি তাইজিন শহরে ঘুরতে গিয়েছিলেন৷ সেখানেই প্রথম দেখতে পায়েছিলেন একটি পোরসেলসিনের বাড়ি৷ তখনই তিনি স্থির করেছিলেন যে একদিন, একই রকমের বাড়ি তৈরি করবেন তিনি৷ সেই স্বপ্নই সত্যি হয় গত বছরের শেষের দিকে৷

porcelin-3

স্বপ্ন সত্যি করতে নিজের বেশকিছু সোনা ও রূপার গহনাও বিক্রি করেতে হয়েছে ইইউকে৷ তবে বর্তমানে ইইউনের এই প্রাসাদ হয়ে উঠেছে ভ্রমণকারীদের চারণভূমি৷ বছরে প্রচুর সংখ্যক মানুষ দেখতে আসে তাঁর এই প্রাসাদ৷ ইইউ নিজে জানিয়েছেন, বছরে সবথেকে বেশি আমেরিকান ও জাপানের ভ্রমণকারীরা আসেন তাঁর প্রাসাদ দর্শনে৷ ভবিষ্যতে আরও এমন প্রাসাদ বানানোর পরিকল্পনাও রয়েছে ইইউয়ের৷

porcelin-4