নয়াদিল্লি: অনলাইন অ্যাপ ক্যাব সার্ভিস ফের পাবেন মানুষ। রাস্তায় নামতে চলেছে ওলা-উবেরের মত অ্যাপ ক্যাব পরিষেবা। সোমবার থেকেই শহরের রাস্তায় দেখা গেল একাধিক ওলা উবেরের গাড়িকে। তবে দেশের বেশ কিছু অংশে এখনও এই পরিষেবা চালু হয়নি।

মূলত অরেঞ্জ ও গ্রিন জোনে ওলা উবের নিজেদের পরিষেবা চালু করল। তবে এখনও রেড জোনে পরিষেবা চালু করার অনুমতি দেয়নি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক জানিয়েছিল

১. রেড জোনে নিষিদ্ধ সাইকেল, রিকশা, অটো, ট্যাক্সি, ক্যাব চালানো। চালু থাকবে টেলিফোন ও ইন্টারনেট পরিষেবা। জল, বিদ্যুৎ, সাফাই কর্মী পরিষেবা চালু থাকার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। চালু থাকবে ক্যুরিয়র ও ডাক পরিষেবা। অত্যাবশ্যকীয় পণ্য পরিষেবা আগের মতোই চালু রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল।

২. অরেঞ্জ জোনে ট্যাক্সি ও ক্যাব চললে তাতে চালক সমেত সর্বোচ্চ দুজন যাত্রী থাকতে পারবেন। আন্তঃজেলা যাতায়াত নির্দিষ্ট করে দেওয়া হয়েছে এই জোনে। অনুমতি ছাড়া আন্তঃ জেলা যাতায়াত করা যাবে না।

৩. গ্রিন জোনে সবধরণের পরিষেবাই চালু রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, কিছু বাদে। বাস চালুর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে ৫০ শতাংশ যাত্রী নিতে পারবে বাসগুলি। বাস ডিপোতেও ৫০ শতাংশ কর্মী নিয়ে কাজ শুরু করতে বলা হয়েছে। সব ধরণের পণ্যবাহী গাড়ি চলাচলে ছাড় দেওয়া হয়েছে।

কোনও রাজ্য পণ্যবাহী গাড়ির চলাচলে বাধা দিতে পারবে না বলে নির্দেশ দিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। অরেঞ্জ ও গ্রিন জোনে ই-কমার্স সংস্থাগুলি অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ছাড়াও অন্যান্য দ্রব্য সরবরাহ করতে পারবে।

অ্যাপ ক্যাব পরিষেবা পেতে ডিজিটাল ট্রানজাকশনে জোর দিচ্ছে ওলা উবের। সংক্রমণ রুখতে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার কথা জানিয়েছে এই দুই সংস্থা। রেড জোনে যেহেতু অ্যাপ ক্যাব পরিষেবা মিলছে না, এর জেরে মুম্বই, কলকাতা, দিল্লি, হায়দরাবাদ, পুনে, বেঙ্গালুরু, চেন্নাই ও আহমেদাবাদে ওলা উবের এখনই চলবে না।

স্বামীর সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বস্ত্র ব্যবসাকে অন্যমাত্রা দিয়েছেন।'প্রশ্ন অনেকে'-এ মুখোমুখি দশভূজা স্বর্ণালী কাঞ্জিলাল I