কলকাতা : নিঃসন্দেহে ঐন্দ্রিলা টেলিভিশনের সুন্দরী, স্মার্ট, বোল্ড অভিনেত্রীদের মধ্যে একজন৷ দীর্ঘদিন ধরে বাংলা টেলিভিশনে কাজ করছেন ঐন্দ্রিলা৷ এই মুহূর্তে তাঁর ধারাবাহিক ‘ফাগুন বউ’ টিআরপি রেটিংয়ের শীর্ঘে রয়েছে৷

কেবল ধারাবাহিকের জন্য নয় তিনি তাঁর সৌন্দর্যের কারণেও সর্বদা সংবাদ শিরোনামে থাকেন৷ ঐন্দ্রিলার ইনস্টাগ্রাম, ট্যুইটারে একটু উঁকি ঝুঁকি মারলেই তাঁর সবসময়ে নিউজে থাকার কারণও সামনে চলে আসে৷

প্রায়দিনই কোনও না কোনও ছবি পোস্ট করে ভাইরাল হয়ে যান৷ সম্প্রতি একটি শোয়ের পারফরমেন্সের আগে ছবি পোস্ট করেছেন৷ যেখানে কালো এবং সিলভার রঙের সিক্যুয়েন্ড টপে দেখা যাচ্ছে৷

পুরনো এই ছবিটি হঠাৎ শেয়ার করেছেন অভিনেত্রী৷ ক্যাপশনে লেখা থ্রোব্যাক৷ দুবাইয়ের একটি শোয়ের আগে এই ছবিটি ড্রেসিং রুমে তুলেছিলেন ঐন্দ্রিলা৷ যা পোস্ট করতেই নিমেষে ভাইরাল হয়ে গিয়েছে৷ প্রসঙ্গত, তাঁর ধারাবাহিকে চলছে টানটান উত্তেজনা৷

গানের প্রতিযোগিতায় গান গাওয়ার কথা মোহুল এবং রোদ্দুরের৷ কিন্তু সোনাঝুরির পাতা ফাঁদে ফেঁসে গিয়েছে দু’জন৷ অনুরূপের ট্রেন করা নাটক সাজিয়ে গুছিয়ে সত্যি প্রমাণ করার চেষ্টায় সোনাঝুরি৷ পেট ব্যাথার নাটক করে হাসপাতালে রোদ্দুরকে আটকে দিয়েছে সে৷

প্রথমদিকে রোদ্দুর এবং মোহুল দু’জনকেই গানের প্রতিযোগিতায় যেতে না দেওয়ার প্ল্যান করেছিল৷ পরের দিকে যেটা অসম্ভব হয়ে যায়৷ মোহুলকে আটকাতে না পারলেও পেট ব্যাথার বেরে যাওয়ার ভান করে রোদ্দুরের কাছ থেকে কথা নিয়ে নেয় যে রোদ্দুর তাঁকে হাসপাতালে একা ছেড়ে কোথাও যাবে না৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।