কলম্বো: ব্যাট হাতে টম ল্যাথাম, বি জে ওয়াটলিংয়ের দাপটের পর দ্বিতীয় ইনিংসে দুরন্ত হয়ে উঠলেন বোলাররা। কলম্বোয় দ্বিতীয় টেস্টে শ্রীলঙ্কাকে ইনিংস ও ৬৫ রানে হারিয়ে দু’ম্যাচের টেস্ট সিরিজ অমিমাংসিত (১-১) ভাবে শেষ করল নিউজিল্যান্ড। প্রথম ইনিংসে ১৮৭ রানে পিছিয়ে থেকে পঞ্চমদিন দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র ১২২ রানেই গুটিয়ে গেল দ্বীপরাষ্ট্রের ব্যাটিং লাইন আপ।

বৃষ্টিবিঘ্নিত কলম্বোয় নির্ণায়ক টেস্টের প্রথম দু’দিন কার্যত ভেস্তে যায় বৃষ্টিতে। দু’দিন মিলিয়ে সর্বসাকুল্যে বল গড়ায় ৬৬ ওভার। তৃতীয়দিন প্রথম ইনিংসে শ্রীলঙ্কা অল-আউট হয়ে যায় ২৪৪ রানে। জবাবে চতুর্থদিন ওপেনার টম ল্যাথামের ১৫৪ রান, উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান বি জে ওয়াটলিং ও কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমের অর্ধশতরানে চালকের আসনে পৌঁছে যায় নিউজিল্যান্ড। চতুর্থদিন ১৩৮ রানে এগিয়ে থেকে খেলা শেষ করে কিউয়িরা। পঞ্চমদিন রানের ব্যবধান কিছুটা বাড়িয়ে নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে শ্রীলঙ্কাকে সস্তায় গুটিয়ে দেওয়াই প্রাথমিক লক্ষ্য ছিল নিউজিল্যান্ডের।

চতুর্থদিন ৮৩ রানে অপরাজিত গ্র্যান্ডহোম কোনও রান যোগ না করেই প্যাভিলিয়নে ফেরেন পঞ্চমদিন। তবে ৮১ রানে অপরাজিত ওয়াটলিং পঞ্চমদিন সকালে কেরিয়ারের সপ্তম টেস্ট সেঞ্চুরিটি পূর্ণ করেন। ৬ উইকেটে ৪৩১ রান তুলে প্রথম ইনিংসের সমাপ্তি ঘোষণা করে কিউয়িরা। ১৮৭ রানে এগিয়ে থেকে এরপর প্রথম টেস্ট জয়ের জন্য বোলারদের দিকে তাকিয়ে ছিল নিউজিল্যান্ড। হতাশ করলেন না ট্রেন্ট বোল্ট, টিম সাউদিরা।

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট হাতে নেমে রানের খাতা না খুলেই প্যাভিলিয়নে ফেরেন লাহিরু থিরিমানে। রান আউট হন তিনি। এরপর শূন্য রানে বোল্টের ডেলিভারিতে উইকেটের পিছনে তালুবন্দি হন কুশল পেরেরা। পি সারা ওভালে পঞ্চমদিন ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠা কিউয়ি বোলারদের সামনে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে ব্যর্থ শ্রীলঙ্কান ব্যাটসম্যানরা। ব্যতিক্রমী নিরোশান ডিকওয়েলা ৫১ রান করে সামাল দেওয়ার চেষ্টা করলেও উলটোদিকে তাসের ঘরের মত ভেঙে পড়তে থাকে শ্রীলঙ্কার ব্যাটিং লাইন আপ। প্রথম ইনিংসে শতরানের নায়ক ধনঞ্জয়া ডি’সিলভা ফেরেন মাত্র ১ রান করে।

অষ্টম উইকেটে সর্বাধিক ৪০ রান যোগ করে ডিকওয়েলা-লাকমল জুটি। শেষ অবধি কিউয়ি বোলারদের সামগ্রিক দাপটে ১২২ রানেই শেষ হয়ে যায় দ্বীপ রাষ্ট্রের দ্বিতীয় ইনিংস। ট্রেন্ট বোল্ট, টিম সাউদি, আজাজ প্যাটেল ও উইলিয়াম সমারভিলে নেন ২টি করে উইকেট। শ্রীলঙ্কা অধিনায়ক করুণারত্নেকে আউট করার সঙ্গে সঙ্গে টেস্ট ক্রিকেটে এদিন ২৫০ উইকেটের মালিক হন সাউদি। একটি উইকেট নেন গ্র্যান্ডহোম।

ফলস্বরূপ গলে প্রথম টেস্ট ৬ উইকেটে হেরে পিছিয়ে পড়লেও কলম্বোয় ইনিংস ও ৬৫ রানে জিতে সিরিজ অমিমাংসিত অবস্থায় শেষ করল বিশ্বকাপের রানার্সরা। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের শুরুতে দুই দলই সংগ্রহ হরল ৬০টি করে পয়েন্ট।