কলকাতা- করোনা আতঙ্কের জেরে গোটা দেশ জুড়ে চলছে লকডাউন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ঘোষণায় এই লকডাউন চলছে। আর এরই মধ্যে দিল্লির নিজামুদ্দিনে তবলিঘি জামাত মারকাজ নতুন করে চিন্তা বাড়িয়েছে। কারণ সেই ধর্মীয় সভায় উপস্থিত ছিলেন নানা দেশ বিদেশের মানুষ। এবার এই প্রসঙ্গে মুখ খুললেন অভিনেত্রী তথা লোকসভা সাংসদ নুসরত জাহান।

নুসরত এক জাতীয় সংবাদমাধ্যমের কাছে বলেছেন, দেশে নানা ধর্মের মানুষের বাস। এই মুহূর্তে কেউ কোনও অনুষ্ঠানে অংশ নিচ্ছে না। মারকাজের ঘটনা আমাদের অনেকটা পিছিয়ে দিয়েছে। নুসরত আরও বলেছেন, আমাদের দেশ একটা কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। আমি হাত জোড় করে মানুষের কাছে অনুরোধ করছি এখন রাজনীতি, ধর্ম ও জাত নিয়ে কোনও কথা না বলতে। গুজব না ছড়িয়ে এখন বাড়িতে থাকাই ভালো। কোয়ারেন্টিনে থাকুন। ধর্ম পরে আসবে।

শুধু তাই নয়, তৃণমূল এই সাংসদ বলেন, এই পরিস্থিতিতে ‘হিন্দু-মুসলিম রাজনীতি’ না করে যে সরকারি নির্দেশ মেনে চলা উচিত। নুসরতের মতে, এখন এই সমস্যাটাকে গুরুত্ব দিন। কারণ রোগ কিন্তু ধর্মকে আক্রমণ করে না। আমাদের জন্য এই সময়টা খুব স্পর্শকাতর আর যে কোনও ধর্মেরই আপনি হন, আপনার এই ভয়ঙ্কর ভাইরাসকে বোঝা উচিত।

১ মার্চ থেকে ১৫ মার্চের মধ্যে দিল্লির নিজামুদ্দিনের এই ধর্মীয় অনুষ্ঠানে বহু মানুষ উপস্থিত ছিলেন। ১০০রও বেশি মানুষ এসেছিলেন চিন, ইয়েমেন, বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা ইন্দোনেশিয়া, সৌদি আরব, আফগানিস্তান ও ইংল্যান্ড থেকে। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিতদের মধ্যে ৩০০ জন ইতিমধ্যেই করোনায় আক্রান্ত বলে জানা যাচ্ছে। এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১০ জনের। প্রসঙ্গত, ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত ভারতে লকডাউন চলবে। কিন্তু এদিকে আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। করোনা ভাইরাসের ছোবল পড়েছে বিশ্বের ২০৩টি দেশে। ভারতেও আক্রান্তের সংখ্যা ২০০০ ছাড়িয়েছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।