কলকাতা: কয়েক ঘণ্টা আগেও পার্টি করেছেন স্বামী নিখিল জৈনের সঙ্গে। সেই ছবিও পোস্ট করেছিলেন ইনস্টাগ্রামে। কিন্তু তারপরই হঠাৎ অসুস্থ অভিনেত্রী তথা তৃণমূল সাংসদ। বাইপাসের ধারে বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তিনি। তাঁর অসুস্থতা নিয়ে প্রকাশ্যে এল নতুন জল্পনা।

সূত্রের খবর, অতিরিক্ত ঘুমের ওষুধ খাওয়ার জন্যও নাকি অসুস্থ হয়ে থাকতে পারেন তিনি। আনন্দবাজার ও বর্তমানের মত সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, হাসপাতালের তরফে নিয়ম মেনে, ফুলবাগান থানায় তাঁর ‘ড্রাগ ওভারডোজ’ নিয়ে রিপোর্টও করা হয়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে, তাঁরা নুসরতের অসুস্থতার কারণ এবং বর্তমান শারীরিক পরিস্থিতি নিয়ে কোনওরকম মুখ খুলতে অস্বীকার করেন।

আরও পড়ুন: মধ্যবিত্তের জন্য খুশির খবর, কম সময়ে অনেক বেশি টাকা দেবে LIC

যদিও নুসরতের অফিসের তরফ থেকে বিবৃতি জারি করে বলা হয়েছে, শ্বাসকষ্ট জনিত সমস্যার জেরে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন তিনি। অভিনেত্রীর হাঁপানির রোগ আছে বলেও বিবৃতিতে জানানো হয়েছে। এছাড়া অভিনত্রীর পরিবারের তরফ থেকেও ঘুমের ওষুধের কথা অস্বীকার করা হয়েছে। তাঁর স্বামী জানিয়েছেন, নুসরত ভালো আছেন। দ্রুত ফিরে আসবেন তিনি।

আগে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, কোনও ওষুধের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার জেরেই অসুস্থ হয়ে পড়েন নুসরত। সেই ওষুধের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া স্বরূপই তাঁর শ্বাসকষ্ট শুরু হয়েছিল। এছাড়াও বেশ কিছুদিন ধরেই নুসরতের শরীর খুব একটা ভালো যাচ্ছিল না বলে সূত্রের খবর।

তবে সেই সব অসুস্থতা নিয়েই তিনি কাজ চালিয়ে যাচ্ছিলেন। কিন্তু রবিবার রাতে শারীরিক অবনতি হয় হঠাৎ করে। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। জরুরি ভিত্তিতে শুরু হয় তাঁর চিকিৎসা। তাঁকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়।

আরও পড়ুন: “মমতা এখন আর তৃণমূলের সভানেত্রী নেই”, খোলসা করলেন মুকুল রায়

কয়েকজন চিকিৎসকের একটি দল নুসরতের উপর নজর রাখছেন বলে জানা যাচ্ছে। তাঁরাই জানিয়েছেন, সোমবার সকাল থেকে শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে। এখনও তাঁকে পর্যবেক্ষণে রাখা হচ্ছে।

পরিবারের সঙ্গে নুসরতের অসুস্থতার খবর পেয়েই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি খবর পেয়েই ফোন করে খোঁজ নেন বলে জানা গিয়েছে। এছাড়াও তৃণমূলের অন্যান্য নেতা মন্ত্রীরাও তাঁর খোঁজ নেন বলে জানা যাচ্ছে। বসিরহাটের মানুষও তাঁর দ্রুত আরোগ্যে কামনা করছেন।